খুবিতে ৩ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক  সম্মেলন শুরু

খুলনা প্রতিনিধি : খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে ফার্মেসি ডিসিপ্লিন এবং ফাইটোকেমিক্যাল সোসাইটি অব ইউরোপের আয়োজনে ‘ন্যাচারাল প্রোডাক্টস ফর হেল্দি লিভিং’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু হয়েছে। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক প্রধান অতিথি হিসেবে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। তিনি বলেন আমরা বেঁচে থাকার জন্য প্রকৃতির ওপর নির্ভরশীল। প্রকৃতি থেকেই আমরা অনেক কিছুই পাই। রোগ নিরাময়ে ওষুধ তৈরির ক্ষেত্রে এখনও প্রাকৃতিক উৎস থেকে নানা উপাদান সংগৃহিত হয়। সুন্দরবন ও আমাদের সমুদ্র উপকূলীয় উৎস থেকে প্রাকৃতিকভাবে উপাদান সংগ্রহ করে নতুন ওষুধ আবিষ্কারের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। এর জন্য নিরন্তর গবেষণা প্রয়োজন। তিনি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগদানকারী গবেষক বিজ্ঞানীদের প্রতি সে আহবান জানান।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এ সম্মেলন বিশ্ববিদ্যালয়ের সক্ষমতার প্রকাশের সাথে সাথে সুন্দরবনও গুরুত্ব পেয়েছে বলে উল্লেখ করে মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ইউনিসেফ সুন্দরবনকে বিশ্বঐতিহ্য ঘোষণা করে। সুন্দরবনের জীববৈচিত্রে রয়েছে বিপুল সম্ভাবনা। ২০২১ সালে পদ্মা সেতু চালু হলে এবং খানজাহান আলী বিমানবন্দরের কাজ এগিয়ে চলেছে,এটিও চালু হলে দেশ-বিদেশ থেকে  অতিথিদের খুলনায় আসার ভোগান্তি লাঘব হবে। তিনি বিদেশে অবস্থান করেও এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন খুলনায় অনুষ্ঠানে প্রফেসর সত্য সরকারকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানান এবং এটি তার দেশপ্রেম ও মাটির প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসার পরিচয় বলে উল্লেখ করেন।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের চিফ প্যাট্রন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, জীব বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. রায়হান আলী, যুক্তরাজ্যের জন মুরস বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি এবং বায়োমলিকুলার সায়েন্স স্কুলের পরিচালক ও ইউরোপের ফাইটোকেমিক্যাল সোসাইটির (পিএসই) সভাপতি প্রফেসর সত্য সরকার।

অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফার্মেসি ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. আশীষ কুমার দাস। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যসহ ১০ টি দেশের প্রতিনিধি, দেশের সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানির ফার্মাসিস্টসসহ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্কুলের ডিন, ডিসিপ্লিন প্রধান ও সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।