প্রাইভেটকার চুরির কথা বাপ্পির স্বীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের ঝিকরগাছা থেকে প্রাইভেটকার চুরির কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে আটক মিয়ারাজ হোসেন বাপ্পী। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারক মাহাদী সাহান রোববার আসামির জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। বাপ্পী বেনাপোলের সাদীপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। শনিবার বাপ্পীকে আটক করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

জবানবন্দিতে বাপ্পী জানিয়েছে, সে নিজে প্রাইভেটকার চালক। ১৪ জানুয়ারি রাতে তরিকুল, নয়ন ও সে ঝিকরগাছার শিকারপুর গ্রামে ওয়াজ শুনতে যায়। ওয়াজ শেষে তারা তিনজন বাড়ি ফিরছিল। পথিমধ্যে মোবারকপুর গ্রামের রাস্তায় একটি প্রাইভেট কার দেখতে পেয়ে তার কাছে থাকা প্রাইভেটকারের চাবি দিয়ে ওই গাড়ির দরজা খোলা হয়। এরপর তারা গাড়ি নিয়ে নড়াইল আত্মীয় বাড়ি রেখে আসে। পরে প্রাইভেটকার বিক্রি করতে গেলে পুলিশ তরিকুল ও নয়নকে আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তিকে পুলিশ তাকে আটক করেছে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে প্রাইভেটকারটি মোবারকপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াদুদ চালাত। ১৪ জানুয়ারি রাতে গাড়িটি আব্দুর রাজ্জাকের বাড়ির সামনে রেখে বাড়ি চলে যান। পরদিন সকালে এসে তিনি দেখেন প্রাইভেট কারটি চুরি হয়েগেছে। এ ব্যাপারে গাড়ির মালিক সাইফুল ইসলাম অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে ঝিকরগাছা থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চুরি যাওয়া প্রাইভেট কারসহ তরিকুল ও নয়নকে আটক করেন। শনিবার তাদের আদালতে সোপর্দ করা হলে চুরির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেয়। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তদন্তকারী কর্মকর্তা বাপ্পীকে আটক করে রোববার আদালতে সোপর্দ করেন। বাপ্পী প্রাইভেট কার চুরির কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।