সমুদ্রসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ বাগেরহাট কারাগারে ১৪১ভারতীয় জেলে

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বঙ্গোপসাগরে সুন্দরবন উপকূলে বাংলাদেশ সমুদ্রসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের অপরাধে আটক ২৬ ভারতীয় জেলেকে  রোববার বিকেলে আদালতের নির্দেশে বাগেরহাট কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শনিবার বিকেলে মোংলা বন্দরে অদূরে সুন্দরবন উপকূলে ফয়োরওয়ে বয়া এলাকা থেকে এসব ভারতীয় জেলেদের আটক করে নৌবাহিনীর সদস্যরা। শনিবার সন্ধ্যায় নৌবাহিনী আটককৃত ভারতীয় জেলেদের মোংলা থানায় হস্তান্তর করলে রোববার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়। এনিয়ে বঙ্গোপসাগরে সুন্দরবন উপকূলে বাংলাদেশ জলসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের অপরাধে ৬ দফায় আটক ১৪১ জন ভারতীয় জেলে এখন বাগেরহাট কারাগারে  রয়েছে।

মোংলা থানার এস আই আহাদ জানান, শনিবার বিকেলে বাংলাদেশ জলসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ ও আন্তর্জাতিক সীমানা আইন লঙ্ঘন করে সুন্দরবন উপকূলে ফয়োরওয়ে বয়া এলাকায় নৌবাহিনীর একটি জাহাজ টহল দেয়ার সময় এফবি শঙ্খ প্রদীপ ও এফবি মা মঙ্গল নামে দুটি ফিশিং ট্রলারসহ ২৬ ভারতীয় জেলেকে আটক করে। সন্ধ্যায় নৌবাহিনীর বিএনএস মোংলা নৌঘাঁটির চীফ পেটি অফিসার ইমান আলী ভারতীয় জেলেদের বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশ ও আন্তর্জাতিক সমদ্র আইনে এ মামলা করেন। আটককৃত ভারতীয় ২৬ জেলেকে রোববার দুপুরে বাগেরহাট আদালতে পাঠানো হয়। আদালত আটককৃতদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এনিয়ে ৬ দফায় বাংলাদেশ সমুদ্রসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের অপরাধে আটক ১৪১ ভারতীয় জেলে বর্তমানে বাগেরহাট কারাগারে রয়েছে। ।

এস আই আহাদ আরো জানান, বঙ্গোপসাগরে সুন্দরবন উপকূলে বাংলাদেশ সমুদ্রসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের অপরাধে ২০১৯ সালের ২ অক্টোবর প্রথম দফায় একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৫ জন, ৪ অক্টোবর দুইটি ফিশিং ট্রলারসহ ২৩ জন, ২২ অক্টোবর একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৪ জন, ৪ নভেম্বর চারটি ফিশিং ট্রলারসহ ৪৯ জন, ১০ ডিসেম্বর একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৪ ভারতীয় জেলে আটক হয়।