ঝিকরগাছায় ৩ জন নিখোঁজে আতঙ্ক

এম আলমগীর, বাঁকড়া(ঝিকরগাছা):

সম্প্রতি যশোরের ঝিকরগাছা থেকে এক মাদ্রাসা ছাত্রসহ ৩ জন নিখোঁজের ঘটনা ঘটেছে। ফলে উপজেলা জুড়ে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলো, ঝিকরগাছা সদর ইউপির কাশিপুর হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র একই গ্রামের মোলাম হোসেনের ছেলে রাব্বি হোসেন (১০), নাভারণ ইউনিয়নের বাঁয়সা গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে বাক প্রতিবন্ধী তুষার হোসেন (২২) ও মাগুরা ইউপির কায়েমকোলা (পূর্বপাড়া) গ্রামের মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে ওষুধ ফামের্সির মালিক আল-মামুন (৪০)। পৃথক নিখোঁজের ঘটনায় এসব পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। জিডি সূত্রে জানাগেছে, গত ১৩ জানুয়ারি কাশিপুর হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র রাব্বি হোসেন রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়। প্রতিদিনের ন্যায় বিকাল ৪টার দিকে তার পিতা মোলাম হোসেন ছেলের খোঁজখবর নিতে গেলে ঘটনা জানাজানি হয়। ওই দিন থেকে তার ছেলে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে তার পিতা মোলাম হোসেন বাদি হয়ে ঝিকরগাছা থানায় জিডি করেছেন।

এছাড়া গত ২৮ জানুয়ারি বেনাপোল পোর্ট থানাধীন সাদিপুর গ্রামে খালা বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে উপজেলার বাঁসা গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে বাক প্রতিবন্ধী তুষার হোসেন নিখোঁজ হয়। এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় জিডি করা হয়। অপরদিকে গত সোমবরা বিকালে ঝিকরগাছা উপজেলার কায়েমকোলা বাজারের ওষুধ ফার্মেসী মালিক ওই গ্রামের মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে আল-মামুন রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়েছে বলে জানাগেছে। এ ঘটনায় তার বড় ভাই শাহাবুদ্দিন বাদি হয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঝিকরগাছা থানায় সাধারন ডায়েরি (জিডি) করেছেন। একের পর এক ঝিকরগাছার বিভিন্ন এলাকা থেকে নিখোঁজের ঘটনা ঘটায় সাধারণ মানুষের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনসহ জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন স্কুল, কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।