যশোরে সোনা চোরাচালান মামলায়  নারীসহ দুইজনের যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক : সোনা চোরাচালান মামলায় নারীসহ দুইজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দিয়েছে যশোরে একটি আদালত। মঙ্গলবার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো.ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক এক রায়ে এ সাজা দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো, বেনাপোল পোর্ট থানার দৌলতপুর গ্রামের কাশেম আলীর স্ত্রী সফুরা খাতুন ও ভবেরবেড় গ্রামের ইব্রাহিম হোসেনের ছেলে ই¯্রাফিল হোসেন। সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেছেন পিপি এম ইদ্রিস আলী।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১০ আগস্ট বেনাপোলের বিজিবি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে চোরাকারবারীরা শিকড়ি রাস্তা দিয়ে ভারতে সোনা পাচার করে নিয়ে যাচ্ছে। সকাল সাড়ে ৬টার দিকে বিজিবির একটি দল শিকড়ি বটতলায় অবস্থায় নেয়। এ সময় ভ্যানযোগে দুইজন যাত্রী দেখে থামার নির্দেশ দেয়া হয়। এ সময় সফুরা খাতুনের ব্যাগ থেকে একটি সোনার বার ও অপরযাত্রী ই¯্রাফিল হোসেনের কোমরে বাধা ১০ পিচ সোনার বার উদ্ধার করা হয়। যার ওজন ২ কেজি। এ ব্যাপারে বিজিবির হাবিলদার মোজাম্মেল হোসেন ওই দুইজনকে আসামি করে বেনাপোল পোর্ট থানায় চোরাচালন দমন আইনে মামলা করেন। এ মামলার তদন্ত শেষে আটক দুইজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শরীফ হাবিবুর রহমান। দীর্ঘ স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে সোনা চোরাচালানের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাদের প্রত্যেকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রপ্ত দুইজন কারাগারে আটক আছে।