বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি হিসেবে দেশকে অলঙ্কৃত করছেন নৌকার কাণ্ডারি শেখ হাসিনা : শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল : যশোর-১ (শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগনের কাজ করছেন। যা দর্শনীয় হয়ে এক সময়ের ভূতুড়ে পল্লী আজ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত। উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় গ্রামের ধুলা মাটি আর কর্দামক্ত রাস্তাগুলো হয়েছে পাকাকরণ। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকল বিভাগে এসেছে আমূল পরিবর্তন। যা বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি হিসেবে দেশকে অলঙ্কৃত করছেন নৌকার কাণ্ডারি শেখ হাসিনা।  মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ টায় শার্শা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানের বিভিন্ন ছন্দমালায় উপজেলার কুলপালা গ্রামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান টিআর কাবিটা কর্মসূচির আওতায় দুর্যোগ সহনীয়  বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের ২৩টি বাড়ি ফিতা কেটে উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানের প্রথম প্রহরে উপজেলা প্রাঙ্গণে সুসজ্জিত বঙ্গবন্ধুর অস্থায়ী ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন। পরে জাতীয় পতাকা ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ছবি সম্মিলিত দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন। বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন করেন জন্মশতবার্ষিকী। বিশ্বব্যাপী করোনার ঘনঘটা। করনা থেকে সাবধানতা অবলম্বনের পরামর্শপূর্বক কেক কেটে পালন করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী।

পরে শার্শা উপজেলার সকল প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর স্মরণে গাছের চারা রোপন করেন। মুক্তিযোদ্ধা, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে নগদ টাকা, চেক ও হুইল চেয়ার বিতরণ করেন। অনুষ্ঠানমালার ছন্দ হিসেবে এক সময়ের ভূতুড়ে পল্লী কুলপালা গ্রামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান টি-আর কাবিটা কর্মসূচির আওতায় দুর্যোগ সহনীয়  বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের ২৩টি বাড়ি ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন। পরে শার্শার নাভারণ প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে নৌকা প্রতিকে দৃশ্যমান ১০০ পাউন্ডের কেক কেটে আদর করে পিতৃ¯েœহে শিশুদের মুখে তুলে খাইয়ে দেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে কথা বলেন। দুপুর গড়িয়ে এলে প্রতিবন্ধী শিশুদের সাথে বসে মধ্যহ্ন ভোজে অংশ নেন সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন এমপি।

এসময় তিনি বলেন “প্রতিবন্ধী সমাজের বোঝা নয়”। যা প্রমাণ করে প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, সহকারী কমিশনার (ভূমি) খোরশেদ আলম, নাভারণ সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান, বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খান, যশোর জেলা পরিষদের সদস্য ও নাভারণ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা আবুল হাসান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা লাল্টু মিয়া, কৃষি কর্মকর্তা সৌতম কুমার সীল, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাইদুর রহমান, সমবায় কর্মকর্তা আক্কাস আলী, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান চৌধূরী, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শেখ আব্দুর রব, দারিদ্র্য বিমোচন কর্মকর্তা শফিউর রহমান, উপজেলা সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা ফুয়াদুল ইসলাম, প্রোগ্রাম কর্মকর্তা দেবসীস সাহা, তথ্যসেবা কর্মকর্তা সুমনা পারভীন, খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা ইন্দ্রজিৎ সাহাসহ উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ সালেহ আহমেদ মিন্টু, শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ বজলুর রহমান, বাহাদুরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান হাদিউজ্জামান, গোগা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আব্দুর রশিদ, বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ ইলিয়াস কবির বকুল, কায়বা ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিংকু, উলাশী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আয়নাল হক, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আযাদ, ডিহি ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন আলী, লক্ষণপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারা বেগম ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার প্রমুখ।