মণিরামপুরে কলেজছাত্রকে শ্বাসরোধে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর : মণিরামপুর পলাশী স্কুল এন্ড কলেজের মসজিদের পাশ থেকে ইকলাস হাসান নয়ন নামে এক কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে এলাকাবাসীর খবরের ভিত্তিতে মণিরামপুর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। পুলিশ এঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, কলেজ ছাত্র ইকলাস হাসান বাঘারপাড়া উপজেলার জাদবপুর গ্রামের আবু হানিফের ছেলে। যশোর সদর উপজেলার রুদ্রপুর গ্রামের নানা আইয়ার আলীর বাড়িতে থেকে সে রুদ্রপুর কলেজে পড়ালেখা করতো। স্থানীয় লোকজন ও তার নানার পরিবারের সদস্যরা জানায়, ইকলাস হাসান নয়ন রুদ্রপুর কলেজের বাণিজ্য বিভাগ থেকে এবারে এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলো। মণিরামপুরের বাসুদেবপুর গ্রামে ইব্রাহিম হোসেন নামের এক শিক্ষকের কাছে সে সকালে প্রাইভেট পড়তো। মঙ্গলবার সকালে ফজরবাদ নানা বাড়ি থেকে প্রাইভেট পড়তে পায়ে হেঁটে বের হয়। এর কিছু সময় পর এলাকার লোকজন পলাশী স্কুল এন্ড কলেজের মসজিদের পাশে তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রোহিতা ইউপি চেয়ারম্যান আনছার আলী সরদার।

মণিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। থানার ওসি (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান বলেন, কোন প্রেমঘটিত কারণে কলেজ ছাত্র ইকলাসকে হত্যা করা হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তার গলায় এবং কপালে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে দুর্বৃত্তরা তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে।

এ ব্যাপারে নিহতের নানা আইয়ার আলী বাদী হয়ে নিহত একলাসের সহপাঠী একই উপজেলা এড়েন্দা গ্রামের আলাউদ্দীনের ছেলে মৃদুল (২০) এর নাম উল্লেখসহ ২/৩ অজ্ঞাত করে মামলা করেছেন। যার মামলা নম্বর-১০।