স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুকের মামলা করেন সরকারি শিশু পরিবারের উপ-তত্ত্বাবধায়ক

নিজস্ব প্রতিবেদক : যৌতুকের দাবিতে মারপিটের শিকার হয়েছেন যশোর শহরের নাজির শংকরপুরস্থ সরকারি শিশু পরিবারের (বালিকা) উপ-তত্ত্বাবধায়ক শান্তা শ্যামলী মনীষা (৩৪)। এ ঘটনায় তিনি স্বামী কিংশুক ভাষ্করের (৪৩) বিরুদ্ধে যৌতুক নিরোধ আইনে মামলা করেছেন।

মণিরামপুর উপজেলার ভোজগাতী গ্রামের আব্দুল খালেক মনির মেয়ে মনীষা এজাহারে উল্লেখ করেছেন, ঝিকরগাছার বাইশা গ্রামের দাউদ হোসেনের ছেলে কিংশুক ভাষ্করের সাথে তার ১২ বছর আগে বিয়ে হয়। তিনি যশোর শহরের শংকরপুরের সরকারি শিশু পরিবারের কোয়ার্টারে বসবাস করেন। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে নানাভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে। তার পিতার বাড়ি থেকে ৫ লাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে বলে। দিতে রাজি না হওয়ায় গত ২ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তার কোয়ার্টারে তাকে মারপিট করে। তার নাকে ও মুখে আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে। পরে চিৎকার চেচামেচি শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে কিংশুক তাকে ছেড়ে দিয়ে চলে যায়। পরে তিনি যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে এসে চিকিৎসা গ্রহণ করেন এবং কোতয়ালি থানায় মামলা করেন।