লকডাউন ঘোষণাসহ ৯ দফা সুপারিশ যশোরের বামপন্থীদল গুলোর

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং যশোর মেডিকেল কলেজে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার ব্যবস্থা করাসহ ৯ দফা দাবি জানিয়েছেন বাম গণতান্ত্রিক দলের নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়া সারাদেশে জাতীয় দূর্যোগ করোনা ভাইরাস সংক্রমণে মোকাবেলায় বাম রাজনৈতিকদলসহ সর্বদলীয় সমন্বিত উদ্যোগ নেয়ার দাবি জানান তারা।

মঙ্গলবার দুপুরে প্রেস ক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলনে এইসব দাবি জানান বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু।

লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, যতই দিন যাচ্ছে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস মহামারি রুপ নিচ্ছে। এই অবস্থায় যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিকে করোনাসহ সাধারণ চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার জেলায় জেলায় করোনা ভাইরাস পরীক্ষার কথা বললেও যশোর জেলায় কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। করোনা ভাইরাসে যশোরের বিভিন্ন হতদরিদ্ররা কর্মহীন হয়েছে। কিন্তু সরকার তাদের যে খাদ্যসহায়তা দিচ্ছে সেটা হতাশাজনক। করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের কর্মকাণ্ডে প্রচণ্ড সমন্বয়হীনতা ও অব্যবস্থাপনা পরিলক্ষিত হচ্ছে। তাই জাতীয় দুর্যোগ ঘোষণা ও সর্বদলীয় সমন্বয় কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে ৯ দফা দাবি জানান।

দাবি গুলো হলো, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং যশোর মেডিকেল কলেজে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার ব্যবস্থা করা। যশোরের সকল সরকারি হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিকে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা। করোনা চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত সকল চিকিৎসককে নিরাপত্তা ও প্রণোদনা বীমা চালু করতে হবে। সকল কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষের বিনামূল্যে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। শ্রমজীবী ও কর্মহীন মানুষের ৬ মাস মেয়াদি রেশনের ব্যবস্থা চালু করতে হবে। কৃষি খাতকে রক্ষার জন্য ভুর্তকি দিতে হবে। এ ছাড়া ঘরে কোয়ারেন্টাইন করার জনগণকে উদ্বুদ্ধ, ওয়ার্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা, ত্রাণ তৎপরতার দুর্নীতিবাজাদের শান্তির আওতায় আনা এবং যশোর জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করার দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ, বাসদ (মার্কসবাদী) যশোর জেলার সমন্বয়ক হাসিনুর রহমান, বাসদ জেলা কমিটির সদস্য গোলাম মোস্তাফা, সিপিবি সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন প্রমুখ।