একসঙ্গে অমিতাভ বচ্চন ও মুহাম্মদ আলী

স্পন্দন বিনোদন ডেস্ক :
বড় পর্দায় একসঙ্গে অভিনয় করার কথা ছিল বলিউডের ‘শাহেনশাহ’ অমিতাভ বচ্চন ও ‘দ্য গ্রেটেস্ট’খ্যাত কিংবদন্তি মুষ্টিযোদ্ধা মুহাম্মদ আলীর। আর সেটা হলে সত্যিই এক ঐতিহাসিক ল্যান্ডমার্ক হতে পারতো সিনেমাটি।

বলিউডের মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন তার ব্লগে মুহাম্মদ আলীর স্মৃতিচারণ করেছেন। রোববার (১৯ এপ্রিল) তার ব্লগে ‘বিগ বি’ জানান, প্রকাশ মেহরা পরিচালিত একটি সিনেমায় মুহাম্মদ আলীর অভিনয় করার কথা ছিল। কিন্তু সিনেমাটি প্রাথমিক কথাবার্তার পর আর বেশিদূর এগোয়নি।

ব্যক্তিগত ব্লগে অমিতাভ বচ্চন জানান যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলসের বেভারলি হিলসে ‘দ্য গ্রেটেস্ট’র বাড়িতে তার সঙ্গে সাক্ষাতের কথা। চিত্রনির্মাতা প্রকাশ মেহরা একটি সিনেমা বানাতে চেয়েছিলেন, যেখানে মূল চরিত্রে থাকবেন অমিতাভ বচ্চন ও মুহাম্মদ আলী। কিন্তু এই ছবিটা ছাড়া সেখান থেকে আর কোনো প্রাপ্তি ঘটেনি।

মুহাম্মদ আলীর সঙ্গে অমিতাভ বচ্চনের একটি দুর্লভ ছবি শেয়ার করেছেন বিগ বি। সঙ্গে তিনি লিখেছেন, ‘খুব মজাদার এবং অমায়িক মানুষ ছিলেন মুহাম্মদ। বেভারলি হিলসের অভিজাত এলাকায় থাকতেন তিনি। কিন্তু তার হৃদয় ছিল করুণা ও নম্রতায় পূর্ণ। আমাকে কয়েকটি ঘুষিও মেরেছিলেন তিনি, তার তো এটাই স্বভাব। একটি মামলা লড়তে তার একজন আইনজীবীর দরকার ছিল তখন।’

তবে যা’ই হোক, উপমহাদেশের অগণিত দর্শক যে একটি মহাকাব্যিক সিনেমা হতে বঞ্চিত হয়েছে, একথা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়। একজন ক্রীড়া জগতের, আরেকজন বিনোদন জগতের, এই দুই মহাতারকা একসঙ্গে একই পর্দায় আবির্ভূত হলে রসায়নটা যে দুর্দান্ত হতো তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

মুহাম্মদ আলী গত শতাব্দীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ ক্রীড়াব্যক্তিত্ব। মূলত তিনি পেশাদার মুষ্টিযোদ্ধা ছিলেন। কিন্তু একজন সমাজকর্মী হিসেবেও তিনি নন্দিত। যুক্তরাষ্ট্রের ভিয়েতনাম যুদ্ধের বিরোধিতা করেছিলেন তিনি। দেশটিতে নাগরিক অধিকার আন্দোলনের সময় আফ্রিকান আমেরিকান সম্প্রদায়ের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তিনি।