‘মানুষ হিসেবে বড় হওয়াটাই গুরুত্বপূর্ণ’, অপুকে নিয়ে তামিম

স্পন্দন স্পোর্টস ডেস্ক : করোনা ভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন দেশের খেটে খাওয়া মানুষজন। এই কঠিন সময়ে দেশের এই দুস্থ ও অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানো এখন সবচেয়ে বেশি জরুরি। সরকারের পাশাপাশি অবশ্য অনেকে এগিয়েও এসেছেন। ক্রিকেটাররাও এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই।

দেশের ক্রিকেটাররা সমষ্টিগতভাবে এবং ব্যক্তি উদ্যোগে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন। ব্যক্তি উদ্যোগের এই তালিকায় যোগ হয়েছেন জাতীয় দলের স্পিনার নাজমুল হাসান অপুও। নিজ এলাকায় দুস্থ ও অসহায়দের খাদ্যসামগ্রী দিয়ে সহায়তা করছেন তিনি। সতীর্থের এই অসাধারণ উদ্যোগের কথা জানিয়ে তাকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন দেশ সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল।

মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) রাতে নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে একটি ছবি পোস্ট করেছেন তামিম। সেখানে তিনি অপুকে নিয়ে এমন স্ট্যাটাস দেন।

তামিম লিখেছেন, ‘ছবিতে নিজ হাতে চাল মেপে দিচ্ছেন যিনি, মানুষটিকে আপনারা অনেকেই চেনেন। মাঠে তার সেলিব্রেশন আপনাদের আনন্দ দিয়েছে অনেক সময়। এখন সে কাজ করে চলেছে অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে। জাতীয় ক্রিকেটার নাজমুল ইসলাম অপু।’

‘নারায়ণগঞ্জে করোনার এই ক্রান্তিকাল শুরুর সময় থেকেই অপু নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। নিজে যতটুকু পেরেছে ও অন্যদের সহায়তা নিয়ে দিনের পর দিন দুঃস্থদের খাদ্য সহায়তা দিয়ে চলেছে। আমি সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি ওকে সহায়তা করার। আরও অনেকে করেছেন।’

‘এই প্রবল দুর্যোগের সময় দেশজুড়ে আরও অসংখ্য মানুষ এভাবে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে আজ। অপুর যে দিকটি আমার খুব ভালো লেগেছে, সে উদ্যোগ নিয়েছে তো বটেই, নিজেই সবকিছু জোগাড় করে, মেপে, প্যাকেট করে, মানুষের দুয়ারে পৌঁছে দিচ্ছে। একবার-দুবার নয়, বারবার। একজন জাতীয় ক্রিকেটার যখন এভাবে মানবসেবায় ঝাঁপিয়ে পড়েন, সমাজকে তা খুব ভালো বার্তা দেয়।’

তামিম আরও লিখেছেন, ‘অনেক সময়ই আমাদেরকে বিচার করা হয় শুধু ক্রিকেট দিয়ে। অপু দেখিয়ে দিচ্ছে, মানুষ হিসেবে বড় হওয়াটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ!’

তামিম ইকবাল নিজেও করোনার এই দুঃসময়ে দুস্থ মানুষজনের পাশে দাঁড়িয়েছেন। জাতীয় দলের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিজের বেতনের অর্ধেক দান করেছেন। জুনিয়র অ্যাথলেট সামিউল ইসলামকে কয়েক মাসের খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন। সিনিয়র চার ক্রিকেটার মাশরাফি-মাহমুদউল্লাহ-মুশফিক-সাকিবদের সঙ্গে টিম বয় ও ম্যাসাজম্যানদের আর্থিক সহায়তাও দিয়েছেন তিনি।