মাংস বিক্রেতাকে মারপিটের অভিযোগে মামলা আসামি ২

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোর সদর উপজেলার রামনগরে মাংস বিক্রেতা আসলাম হোসেনকে মারপিট এবং চাপট দিয়ে কুপিয়ে জখমের অভিযোগে কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। আটক করা হয়েছে একজনকে। আসামিরা হলো, সতীঘাটা ভাটপাড়ার বিমল রায়ের ছেলে মহাদেব রায় (২৭) এবং রাজারহাট বাজারের হাবু (৪৫) নামে অপর এক যুবক।
মাংস বিক্রেতা আসলামের স্ত্রী ফারজানা বেগম কোতয়ালি থানায় দায়েরকরা এজাহারে উল্লেখ করেছেন, তারস্বামী আসলামের রাজারহাট বাজারে মাংসের দোকান আছে। ওই দোকানের পাশে মদিনা ট্রেইলার্সে কাজ করে মহাদেব রায়। সে প্রায় সময় গরুর মাংস কাটা নিয়ে তার স্বামীর সাথে তর্কবিতর্ক করে থাকে। সে প্রায় বলে থাকে গরুর মাংস ও হাড় কাটার সময় আমার খারাপ লাগে। এই নিয়ে প্রায় নানা কথা বলে। গত ১ মে সকালে মাংস কাটা নিয়ে মহাদেব তার স্বামীর সাথে তর্কবিতর্ক করে। এ পর্যায়ে দোকান থেকে বের হয়ে তার স্বামীকে মারপিট করে। এবং দোকানের চাপট দিয়ে তার স্বামীর শারীরের কুপিয়ে জখম করে। সে সময়ে মাংসের দোকানের পাশের হায়দার আলী নামে এক ব্যক্তি এগিয়ে গিয়ে মহাদেবকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেয়। পরে আশেপাশের লোকজন মহাদেবকে গণপিটুনি দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মাহাদেবকে আটক করে। এবং আসালামকে হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায়। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকাজনক।