অস্বচ্ছল খেলোয়াড় ও সংগঠকদের পাশে এমপি মাশরাফি

ফরহাদ খান, নড়াইল : এবার অস্বচ্ছল খেলোয়াড় ও সংগঠকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সহযোগিতায় নড়াইলের বিভিন্ন অঞ্চলের ২৮ জন নারী ফুটবলারসহ ক্রিকেট, ভলিবল, হকি, কাবাডি ও ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়দের জন্য এক হাজার প্যাকেট খাদ্যসামগ্রী ‘শুভেচ্ছা উপহার’ হিসেবে পাঠিয়েছেন তিনি (মাশরাফি)। এর মধ্যে বর্তমান ও সাবেক খেলোয়াড়সহ ক্রীড়া সংগঠকেরা আছেন।

জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও কোচদের সমন্বয়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে বুধবার থেকে মাশরাফির এই শুভেচ্ছা উপহার সবার কাছে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। আর এই শুভেচ্ছা উপহার নিরবে-নিভৃতে দেয়া হচ্ছে। উপকারভোগীদের ছবি তোলার পক্ষে নন মাশরাফি বিন মর্তুজা। এমনটি জানিয়েছেন মাশরাফি বন্ধু নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৌমেন বসু।

তিনি বলেন, মাশরাফির এই শুভেচ্ছা উপহার অস্বচ্ছল খেলোয়াড় ও সংগঠকদের মাঝে দেয়ার সময় ছবি না তোলার জন্য অনুরোধ করেছেন তিনি। সম্মানের কথা বিবেচনা করে নিরবে-নিভৃতে তাদের (খেলোয়াড় ও সংগঠক) পাশে দাঁড়াতে সকলকে অনুরোধ করেছেন ক্রিকেটের সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

সৌমেন বসু আরো জানান, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সহযোগিতায় এক হাজার প্যাকেট উপহারসামগ্রী পেয়েছেন মাশরাফি। এরপর ঢাকা থেকে নড়াইলে এসব উপহারসামগ্রী পাঠিয়ে দেন তিনি (মাশরাফি)।

এদিকে ঢাকা থেকে পাঠানো মাশরাফি বিন মর্তুজার উপহারসামগ্রী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকুর কাছে গতকাল হস্তান্তর করেন মাশরাফির বাবা গোলাম মোর্ত্তজা স্বপন।

পদাধিকারবলে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি হিসেবে আছেন-জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা ও সিনিয়র সহ-সভাপতি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)। সবার তত্ত্বাবধানে এসব উপহারসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে।

এর আগে মাশরাফির পক্ষ থেকে ১২০০ অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী প্রদান, ডাক্তার, নার্স ও সাংবাদিকদের জন্য পিপিই প্রদান, সদর হাসপাতালের প্রবেশদ্বারে জীবানুনাশক কক্ষ ও ডক্টরস সেফটি চেম্বার স্থাপন, জেলা কারাগারের কয়েদিদের জন্য জীবানুনাশক উপকরণ বিতরণ, নির্বাচনী এলাকার এতিমখানাগুলোতে চাল বিতরণসহ করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন ধরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেন তিনি।