কপিলমুনি ফাঁড়ি পুলিশের জনস্বার্থে ব্যতিক্রম প্রচারণা


পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি:
‘আপনারা নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে চলবেন, বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া অকারণে বাজারে আসবেন না, কোথাও কোন আড্ডা দিবেন না, নিত্য প্রয়োজনীয় পন্যের দোকান, ডাক্তারখানা, ওষুধের দোকান ছাড়া অন্য কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলবেন না, প্রাণঘাতি করোনায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলবেন, মাস্ক ও সেনিটাইজার ব্যবহার করবেন।’
বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনার পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি বাজারে এক হাতে হ্যান্ড মাইক আর এক হাতে মাইক্রোফোন নিয়ে নিজেই জনস্বার্থে এমন প্রচারণা চালাচ্ছিলেন কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক সঞ্জয় দাশ। এসময় তার সাথে কয়েকজন ফোর্সও ছিলেন। শুধু বৃহস্পতিবার নয়, প্রায় প্রতিদিনই প্রাচীনতম এ বাজারটির অলিগলিতে এমনিভাবে প্রচারণায় চালিয়ে থাকেন তিনি। প্রতিটি মূহুর্র্তে তিনি বাজারের দোকান বন্ধ রাখা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, বাইরের এলাকা থেকে আসা মানুষদেরকে হোমকোয়ারেন্টিনে রাখা, মাস্ক ব্যবহার করাসহ বিভিন্ন রকম সচেতনতা সৃষ্টি করে চলেছেন তিনি। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মানুষের সেবায় নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন পরিদর্শক সঞ্জয় দাশ। বাজারের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পর্যন্ত সারাক্ষণ সেবা দিয়ে মানুষের আস্থাভাজনও হয়ে উঠেছেন ইতোমধ্যে।
বাজারের কীটনাশক ও বীজ ব্যবসায়ী মোঃ রফিকুল ইসলাম গাজী বলেন, ‘কপিলমুনি পুলিশ ফাঁিড়র ইনচার্জ একজন দক্ষ জনবান্ধব অফিসার, এখানে উনার দ্বারা মানুষ উপকৃত হচ্ছে। এই ভাইরাসের মৌসুমে তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করে মানুষের নিরাপত্তা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।’
এ বিষয়ে পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ সঞ্জয় কুমার দাশ বলেন, ‘দেশের মহামারি রুখতে সরকার যেসব সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নিয়েছেন সেটা বাস্তবায়নে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। জনস্বার্থে কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ি জনতার কাতারে থাকবে এবং সেবা করবে।’