কয়েক শর্তে আজ খুলছে যশোরের শপিংমল দোকানপাট

 

মিরাজুল কবীর টিটো : করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে দেড় মাস বন্ধ থাকার পর আজ রোববার থেকে সরকারি নির্দেশনা মেনে যশোরে সব ধরনের দোকানপাট ও শপিংমল খোলা হচ্ছে। ফলে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ব্যবসায়ীরা রমজানের কয়েকদিন ব্যবসা করার সুযোগ পেলেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে বেচাকেনা করার আহবান জানিয়েছেন যশোর জেলা প্রশাসন। গতকাল শনিবার দুপুরে সার্কিট হাউজে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায়  ব্যবসায়ীদের এ আহবান জানানো হয়েছে। সভায় বলা হয়, মার্কেটে আসতে পারবেন শুধু শহরের বাসিন্দারা। অন্য উপজেলা থেকে কেউ শহরে এসে কেনাকাটা করতে পারবেন না।

মতবিনিময় সভায় ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে সভাপতির বক্তব্যে যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বলেছেন, শর্ত মেনে ব্যবসা করতে হবে। দোকানের প্রবেশ মুখে হাত ধোয়ার ও স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা,শপিং মলে আসা যানবাহন জীবানুমুক্ত করার ব্যবস্থা, বেচাকেনার ক্ষেত্রে ক্রেতা বিক্রেতার পারস্পরিক দুরত্ব বজায় রাখাসহ স্বাস্থ্য বিধি অনুসরন করতে হবে। দোকানে আসা ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়কে মাস্ক ও গ্লাভস পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দোকানে ৩-৪ জনের বেশি উপস্থিতি থাকা যাবে না। কোনো ক্রেতা যাতে মাস্ক হ্যান্ড গ্লোভস ছাড়া দোকানে প্রবেশ করছে কিনা সেদিকে নজর রাখতে হবে। বাজারে সামাজিক দুরত্ব ও শর্ত মেনে দোকানদাররা ব্যবসা করছে কিনা সেটাও প্রশাসন থেকে মনিটরিং করা হবে।

জেলা প্রশাসক বলেন, ঈদ-উল-ফিতরকে সামনে রেখে সীমিত পরিসরে ব্যবসা-বাণিজ্য চালু রাখার স্বার্থে সকাল ১০ থেকে বিকাল ৪ পর্যন্ত দোকান-পাট খোলা রাখা যাবে।

এ ছাড়াও শহরের বাসিন্দারা কেবল কেনাকাটা করতে পারবেন। অন্য উপজেলা থেকে কেউ শহরে এসে কেনাকাটা করতে পারবেন না। মার্কেটের ভেতরে জীবাণু মুক্ত রাখার জন্য স্ব স্ব মার্কেট কর্তৃপক্ষকে উদ্যোগ নিতে হবে। এ ছাড়া ফুটপাতে কোনো দোকান বসতে দেয়া হবে না। সামাজিক দূরত্ব মেনে সবাইকে ব্যবসা করতে হবে। না মানলে তার দোকান বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেন ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন বাজারে মানুষের ভিড় বেশি না হয় এজন্য ভলেন্টিয়ার রাখতে হবে। হাচি,কাঁশিতে আক্রান্ত কোনো মানুষ বাজারে আসলে তাদের বাইরে বের করে দিতে হবে। ভলেন্টিয়ারের পাশাপাশি পুলিশ সদস্যরা তাদের সহযোগিতা করবে।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন যশোর ক্যান্টনমেন্টের ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের ৩৭ বীরের অধিনায়ক লে.কর্নেল নেয়ামুল হালিম খান,যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল হাসান, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, বাজার কমিটির সভাপতি মীর মোশারেফ হোসেন বাবু,ছিট কাপড় দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আবু হোসেন,স্বর্ণ ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় চৌধুরী প্রমুখ। এ সময় চুড়িপট্টির কসমেটিকস ব্যবসায়ী,সিটি প্লাজা, জেসটাওয়ার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দসহ সকল ব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন।