গরু ছাগলের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীদের অভিযোগ

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : গরু ছাগলের অত্যাচারে কালীগঞ্জ সরকারি ভূষণ স্কুল রোড ও মাঠের কাচাবাজারের ব্যবসায়ীরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। কিছু গরু মালিকের ছেড়ে দেয়া গরুতে তাদের সবজি খেয়ে সাবাড় করে দিচ্ছে। এ অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ ওই ব্যবসায়ীরা পৌরমেয়রের কাছে অভিযোগ দিয়েছে। এ ছাড়াও ওই গরু গুলো রাতেও সমানহারে বাজারের ব্যবসায়ীদের সবজি খেয়ে ফেলছে। সেই সাথে সড়কে যত্রতত্র গরুর বর্জ্যতে পথচারীদের চলার পথ নোংরা করে চলেছে। ক্ষতিগ্রস্থরা জানিয়েছে, শহরের মধুগঞ্জ ও নিশ্চিন্তপুর এলাকার কিছু মানুষ তাদের পোষা গরুর দড়ি খুলে বাজারে উন্মুক্তভাবে ছেড়ে দিয়েছে। গলায় দড়ি বিহীন ছেড়ে দেয়া গরুতে বাজারের দোকান, রাস্তা, ও মাঠের ফসল নষ্ট করে চলেছে।

করোনার মহামারিতে ভূষণ স্কুল মাঠে বসানো সবজি দোকানদাররা জানান, এই দুর্যোগে বেচাকেনা কম হলেও দলে দলে গরু এসে তাদের দোকানে সাজানো সবজি তরিতরকারী খেয়ে ফেলছে। এ বাজারে বসে এমনিতেই তাদের পেট চলছে না। তার উপরে গরু ছাগলের অত্যাচারে তারা বেশ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা আরো জানান, দিনে এমন ক্ষতির পরও ওই গরুগুলো রাতে বাজারে ঢুকে ব্যাপক সবজি নষ্ট করছে। বাধ্য হয়ে তারা এ বিষয়টি পৌর মেয়রকে অবহিত করেছেন। তিনি দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে তারা গরুর অত্যাচারে এ হাট ছাড়তে বাধ্য হবেন বলেও জানান।

ব্যবসায়ীদের এমন অভিযোগ শুনে পৌরমেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ সাংবাদিকদের ডেকে সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে জানান, গরুর অত্যাচারে ভূষণ স্কুল মাঠের সবজি ব্যবসায়ীরা তার কাছে বিচার প্রার্থনা চেয়েছেন। তিনি ওইসব ছেড়ে দেয়া গরু মালিকদের পৌরসভা থেকে নোটিশ বা মাইকিং করে গরু বেধে রাখতে নির্দেশনা দিবেন। এরপরও নির্দেশনা না মানলে তিনি গরুর মালিকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।