নানা সমস্যা : আজ থেকে যশোর টাউনহল মাঠে বসবেন না মাছ ব্যবসায়ীরা

মিরাজুল কবীর টিটো : যশোর টাউন হল মাঠে মাছ ব্যবসায়ীরা নানা সমস্যা তুলে ধরে আগের জায়গায় ফিরে যাওয়ার আকুতি জানিয়েছেন। এখানে ব্যবসা মন্দাসহ বিভিন্ন সমস্যার কারণে আজ মঙ্গলবার থেকে মাছ নিয়ে তারা আর এখানে বসবে না বলে কয়েক ব্যবসায়ী জানিয়েছেন।

মাছ ব্যবসায়ী লোকমান হোসেন জানান বৃষ্টি হওয়ায় টাউন মাঠে অনেক কাঁদা হয়েছে। সেই সাথে অতিরিক্ত রোদ্রের কারনে ক্রেতা মাছ কিনতে আসতে চান না। ক্রেতা না থাকায় টাকা দিয়ে মাছ কিনে এনে বিক্রি করতে না পেরে লোকসান হচ্ছে। রাজু নামে আরেক মাছ ব্যবসায়ী জানান, এ মাঠে মাছ এনে বিক্রি করতে গেলে রোদের কারনে মাছ তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে গন্ধ বের হচ্ছে। ফলে মাছ বিক্রির পরিবর্তে ফেলে দিতে হচ্ছে। এতে করে লাভ হওয়াতো দুরের কথা আসল টাকাই থাকছে না। মাছ বাজারের সভাপতি কৃষ্ণপদ বিশ^াস জানান, টাউন হল মাঠে ব্যবসা করতে এসে পড়েছি অনেক সমস্যায়। এখানে কোনো বৈদ্যুতিক লাইন নেই। এ মাঠে প্রচণ্ড রোদের কারণে একদুইদিনে মাছ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বেশি টাকা দিয়ে বরফ কিনে এনে মাছ রাখলে তাড়াতাড়ি বরফ গলে মাছ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আবার ভ্যানে করে বাড়িতে বাড়িতে  গিয়ে মাছ বিক্রি করায় টাউন হল মাঠে এসে মাছ কেনার ক্রেতা কমে গেছে। এ মাঠে নাইট গার্ড না থাকায় মাছ চুরি হয়ে যাচ্ছে। এতে করে মাছ ব্যবসায়ীদের ক্ষতি হচ্ছে। তিনি আরো জানান, রোদে ব্যবসায়ীরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এ কারণে দুই চারদিন মাছ বাজার বন্ধ থাকবে । ঈদগাহ মাঠের  সবজি ব্যবসায়ী আবু হানিফ জানান, প্রচণ্ড রোদের কারনে  সবজি শুকিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি ভ্যানে করে বাড়িতে বাড়িতে  গিয়ে সবজি বিক্রি করায় ক্রেতা না আসায় বেচাকেনা কমে গেছে। কাঁচা বাজার কমিটি সভাপতি মীর মোশারেফ হোসেন বাবু জানান ঈদগাহ মাঠের তরকারি ব্যবসায়ী ও টাউন হল মাঠের মাছ ব্যবসায়ীরা নানা সমস্যায় পড়েছেন। এ কারনে মাছ ব্যবসায়ীরা আজ মঙ্গলবার থেকে ব্যবসা করবেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে সবজি ব্যবসায়ীরা দোকান কমিয়ে দিয়ে ব্যবসা করবেন বলে জানান। এ ব্যাপারে যশোর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ জানান করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব কমাতে বাজার টাউন হল মাঠে ও ঈদগাহ মাঠে আনা হয়েছে। এখান থেকে আমাদের সিদ্ধান্ত ছাড়া ব্যবসায়ীরা অন্য জায়গায় যেতে পারবেন না। ব্যবসায়ীরা দোকান খুলবেন না বন্ধ রাখবেন সেটা তাদের ব্যাপার। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে তারা কিছু মেনে নিতে চাইবেন না,  সেটা তো হয় না।