প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয় যশোর জেলা প্রশাসনও

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ পরিবারকে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সরাসরি নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান কর্মসূচি বৃহস্পতিবার উদ্বোধন করেছেন। প্রতি পরিবারকে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ অর্থ প্রদানে ইতোমধ্যেই সাড়ে ১২শ’ কোটি টাকা ছাড় করেছে সরকার। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বিনা খরচে প্রত্যেক পরিবারের হাতে ঈদের আগেই এই টাকা পৌঁছে দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এসময় যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ, পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেন, সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি লে.কর্নেল নেয়ামুল হালিম খান, স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক কামরুল আরিফ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাম্মি ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন প্রমুখ। এসময় জেলার পাঁচজন উপকারভোগী বাপ্পি শেখ,  নিজাম উদ্দিন, আজিজুর রহমান, রাজিয়া খাতুন, ফজর আলী উপস্থিত ছিলেন। যশোরের জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ স্পন্দনকে জানান, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সরাসরি নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান কর্মসূচির আওতায় যশোরের ৭২ হাজার পরিবার রয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘এ অর্থ প্রয়োজনের তুলনায় সামান্য। আমরা হয়তো অনেক বেশি দিতে পারবো না। কিন্তু কেউ যাতে বঞ্চিত না হয়, সবাই যাতে সামান্য হলেও সহায়তা পায় আমাদের সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।’  একই সঙ্গে অনলাইন মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থায় স্নাতক ও সমমান পর্যায়ের ২০১৯ সালের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও টিউশন ফি বিতরণ কার্যক্রমেরও উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।