মারা গেলেন কারাতে প্রশিক্ষক জুয়েল

নিজস্ব প্রতিবেদক:
নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট কারাতে প্রশিক্ষক সেনসি হুমায়ুন কবীর জুয়েল। ঢাকার গ্রীনলাইফ হাসপাতালের আইসিইউতে একসপ্তারও বেশি সময় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে হার মানলেন বিশ্ববিখ্যাত এই কারাতে প্রশিক্ষক ও রেফারী।
তার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ১৬মে শ্বাসকষ্টের কারণে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে সেনসি জুয়েলকে রাজধানীর গ্রীনলাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবণতি ঘটলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। চিকিৎসকরা তাকে সুস্থ্য করার আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন তবে শেষ কয়েকদিন তার ব্রেইন, কিডনি ও ফুসফুস সঠিকভাবে কাজ করছিল না বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। শনিবার থেকে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। মঙ্গলবার সকালে সব চেষ্টা ব্যর্থ করে মৃত্যুর কোলে ঢুলে পড়েন তিনি। এরপর হাসপাতাল থেকে জুয়েলের পরিবারের সদস্যদের ফোন করে খবর দেয়া হয়েছে হাসপাতালে আসার জন্য। হাসপাতালে আসার পর স্বজনদেরকে তার মৃত্যুর খবর জানানো হয়।
হুমায়ুন কবীর জুয়েলের স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে বসবাস করছেন। সবধরনের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকায় তারা দেশে ফিরতে পারছেন না।
স্ত্রী-সন্তান ছাড়াও নিউ ইয়র্কে বসবাসরত সেনসি জুয়েলের কারাতের ছাত্র জিএম ফিরোজ কবীর ও মঞ্জুরুল কাদের ফেসবুক স্টাটাসে বিশ্বের খ্যাতিমান এই কারাতে প্রশিক্ষকের তার আত্মার মাগফেরাত কামনা ও দোয়া চেয়েছেন।
আশির দশকে বাংলাদেশে জাপানি স্টাইলের সোতোকান কারাতে প্রশিক্ষন শুরু হয় সেনসি হুমায়ুন কবীর জুয়েলের হাত ধরেই। জাতীয় অঙ্গন ছাড়িয়ে বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যান তিনি। তার প্রতিষ্ঠিত ”জুয়েল কারাতে একাডেমি’ বিশ্বের বুকে অতি পরিচিত একটি নাম। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় সেনসি জুয়েলের ছাত্র-ছাত্রীরা কয়েকশ’ স্বর্নপদক অর্জন করেছেন যা দেশের ক্রীড়াঙ্গনে একটি বিরল ঘটনা। বাংলাদেশ জুডো কারাতে ফেডারেশনের প্রশিক্ষক এবং রেফারী ছাড়াও ওয়ার্ল্ড কারাতে ফেডারেশনের সিনিয়র রেফারী। বিশ্বের বহু দেশে আন্তর্জাতিক কারাতে প্রতিযোগিতায় তিনি রেফারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।