কলারোয়ায় সেই পল্লী চিকিৎসকের স্ত্রী ও ছেলে করোনা পজিটিভ


কলারোয়া প্রতিনিধি : কলারোয়ার চন্দনপুর ইউনিয়নে ফের একই পরিবারের আরও দু’জনের রিপোর্টে করোনা পজিটিভ এসেছে। এ নিয়ে কলারোয়ায় ৬ জন করোনা পজিটিভ হলেন। ৬ জনই চন্দনপুর ইউনিয়নের। নতুন করে আক্রান্ত দুজন হলেন: করোনা আক্রান্ত পল্লী চিকিৎসক আবুল কালাম ওরফে সালেহ এর সহধর্মিণী সালেহা খাতুন(৪০) এবং তার ছেলে খালিদুর রহমান (২২)। আক্রান্তদের বাড়ি চন্দনপুর ইউনিয়নের নাথপুর গ্রামে। জানা গেছে, কলারোয়ার প্রথম করোনা পজিটিভ দাড়কি গ্রামের মাজেদুল ঢাকা থেকে এসে প্রথমে ওই পল্লী চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা সেবা নেন। মাজেদুল থেকে সংক্রমিত হন পল্লী চিকিৎসক কালাম। কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডাঃ জিয়াউর রহমান জানান, গত ২৪ মে কালামের পরিবারের ওই দুজনের নমুনা সংগ্রহ করে পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। বুধবার প্রাপ্ত রিপোর্টে তাঁদের করোনা পজিটিভ আসে। একই পরিবারের ৩ জনের করোনা পজিটিভের খবরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। আক্রান্ত পরিবারের কর্তাব্যক্তি যেহেতু একজন পল্লী চিকিৎসক, সেহেতু তাঁর সংস্পর্শে এরই মধ্যে অনেক মানুষ এসেছেন। আর আতঙ্ক ও উদ্বেগের কারণ এখন এটাই ঘিরে। জানা গেছে, আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িসহ আশপাশের বাড়িঘর আগে থেকেই লকডাউন করা হয়েছে।
এদিকে, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ জিয়াউর রহমান ইতোমধ্যে অফিসিয়ালি চন্দনপুর ইউনিয়নকে লক ডাউন ঘোষণার আবেদন জানিয়েছেন বলে জানান।