সাউথখালীতে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ পরিদর্শনে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী


শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি :
পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল জাহিদ ফারুক বলেছেন, দেশ অর্থনৈতিকভাবে স্বয়ং সম্পূর্ন। প্রধানমন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে দেশকে তিনি মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত করেছেন। সাউথখালীতে নদী শাসন ব্যবস্থা রেখেই বেরিবাঁধ নির্মান করা হবে। যাতে এলাকাবাসীর দূর্ভোগের লাঘব হয়, তার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে, সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে জরুরি ভিত্তিতে বগী থেকে গাবতলা পর্যন্ত দুই কিলোমিটার বেড়িবাঁধের ভেঙ্গে যাওয়া অংশে রিংবাঁধ দেয়া হবে।

বুধবার রাত ৮টার দিকে শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী আশার আলো মসজিদ এলাকায় পাউবো’র ৩৫/১ পোল্ডারের ভেঙ্গে যাওয়া বেড়িবাঁধ পরিদর্শনকালে উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে এক সমাবেশে তিনি একথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, এবারো সুন্দরবন আগলে রেখেছে মানুষকে। তাই সুন্দরবনকে সকলে মিলে সুরক্ষা দিতে হবে।
তার সফরসঙ্গী স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডঃ আমিরুল আলম মিলন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, ২০০৭ সালের পর থেকে সিডরে বেরিবাঁধ বিধ্বস্ত হয়ে সাউথখালীর অর্ধ সহস্রাধিক মানুষের প্রানহানি ঘটে। এ কারনে প্রধানমন্ত্রীর সহৃদয়তায় ৪’শ কোটি টাকা ব্যয়ে নিমিত হচ্ছে শরণখোলায় বেরিবাঁধ। সাউথখালীবাসীর দাবীর প্রতি একাত্বতা প্রকাশ করে দ্রুত বেরবিাঁধ নির্মানের জন্য তিনি প্রতিমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) মোঃ মাহামুদুল ইসলাম, অতিরিক্ত মহা-পরিচালক হাবিবুল রহমান, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশিদ, সিআরপির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন, পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ নাহিদুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা, আওয়ামী লীগ নেতা এম এ রশিদ আকন, আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম খোকন, আব্দুল হক হায়দার, সাউথখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মোজাম্মেল হোসেন, রায়েন্দা ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন, শ্রমিকলীগের সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন খোকনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। এর আগে তিনি আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত পার্শ্ববর্তী মোরেলগঞ্জ উপজেলার নির্মানাধীন বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করেন।