যশোরে দোকানপাট খুলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকা যশোরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফের খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
যশোর সার্কিট হাউজে বুধবার বেলা ১১টায় করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভায়  এ সিদ্ধান্ত হয়।
সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ।
সভায় আরো অংশ নেন যশোরে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, করোনা সংক্রান্ত সেনা তৎপরতায় যশোরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লে. কর্নেল নেয়ামুল হালিম খান, সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন, জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপকুমার রায়, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন প্রমুখ।
এর আগে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় গত ২৭ এপ্রিল যশোর জেলা প্রশাসক সাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল।এতে দোকানপাট শপিংমল বন্ধ রাখার কথা বলা হয়।
এর প্রায় দুই সপ্তাহ পর সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১০ মে দোকানপাট খুলে দেওয়া হয়। কিন্তু তখন ঈদবাজারে মানুষের ঢল বেড়ে যাওয়ায় ক্রেতা-বিক্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি মানছিলেন না। অন্যদিকে, জেলায় করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যাও প্রতিদিন বাড়ছিল। এমন পরিস্থিতিতে ১৭ মে নির্বাহী আদেশ জারি করে ১৯মে থেকে দোকানপাট শপিংমল বন্ধ করে দেওয়া হয়।এতে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এরপর বুধবার আবারো দোকানপাট খোলার সিদ্ধান্ত আসলো।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ জানান, আগের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। এখন থেকে ব্যবসায়ীরা ইচ্ছা করলে তাদের দোকানপাট খুলতে পারবেন।

যশোর বড়বাজারের ইজারাদার ও ব্যবসায়ী নেতা মীর মোশাররফ হোসেন বাবু জানান, বৈঠকের সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর নেতাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে । ব্যবসায়ী নেতারা তাদের সদস্যদের বিষয়টি অবহিত করেছেন। সিদ্ধান্ত জানার পর পরই শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কিছু কিছু দোকানপাট খুলেছে। সাধারণত ঈদের দুই-একদিন পর দোকানপাট খোলে। সেই হিসেবে আশা করা হচ্ছে, বৃহস্পতিবার নাগাদ মোটামুটি সব দোকানপাট খুলতে পারে।