ভৈরব নদের যশোর শহরাংশে পানি জমে বন্ধ হয়ে গেলো খনন কাজ

 

মিরাজুল কবীর টিটো : ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে বৃষ্টিতে ভৈরব নদের যশোর শহর অংশে পানি জমে থাকায় বন্ধ হয়ে গেল খনন কাজ। একারনে এবছর আর খনন কাজ করা যাবে না। আগামী বছর নতুন করে টেন্ডার করে খনন কাজ শুরু করতে হবে বলে জানালেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তৌহিদুল ইসলাম। এরমধ্যে যদি খনন করার পরিবেশ সৃষ্টি হয় তাহলে ভৈরব নদের কিছু অংশ খনন করে কাজ  এগিয়ে রাখা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, যশোর শহর অংশের ভৈরব নদ খননের লক্ষে টেন্ডার করে কাজ শুরুর সময় নির্ধারণ করা হয় ২০১৯ সালের ৬ আগস্ট। চলতি বছরের ২০ জুন এ কাজ শেষ করার জন্য সময় বেঁধে দেয়া হয়। এ সময়ের মধ্যে শহরের কাঠের পুল থেকে বিরামপুর পর্যন্ত চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ও ৪৫ মিটার প্রস্ত খনন কাজ শেষ করতে হবে। কিন্তু চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ভৈরব নদ খনন কাজ শুরু করা হয়। কাজ শুরু করলেও বেশি দিন করা যায়নি। করোনা ভাইরাসের কারনে মার্চের শেষে কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়। এক মাস খনন কাজ বন্ধ রাখার পর রোজার মাসে ফের খনন কাজ শুরু করা হয়। এরই মধ্যে ২১ মে ঘুর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে বৃষ্টি হওয়ায় ভৈরব নদের শহর অংশে পানি জমে যাওয়ায় আবারো খনন কাজ বন্ধ করা হয়েছে। এরপর খনন কাজ আর শুরু করা হয়নি। তবে আগামী ২০ জুন কাজের মেয়াদ শেষ হলেও খনন কাজ আর শুরু করা যাবে না বলে জানালেন পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তৌহিদুল ইসলাম জানান, আম্পান ঝড় ও অনেক বৃষ্টি  হওয়ায় ভৈরব নদের শহর অংশে যে পরিমান পানি জমেছে সেখানে স্কেভেটর দিয়ে খনন কাজ করা যাবে না। রোদে যদি পানি শুকিয়ে খনন কাজ করার মতো পরিবেশ হয় তাহলে কাজ খনন করে কাজ এগিয়ে রাখা হবে। কিন্তু আগামী ২০ জুনের মধ্যে কোনোরকম কাজ শেষ করা যাবে না। আগামী বছর (২০২১ সাল) নতুন করে টেন্ডার করে কাজ শুরু করতে হবে।