করোনা রোগীর সেবায় দান করলেন মায়ের অক্সিজেন সিলিন্ডার

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশনে থাকা রোগীদের চিকিৎসাসেবার দেওয়ার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকট হয়ে পড়েছে। এ সংকট নিরসনের লক্ষ্যে মায়ের ব্যবহৃত অক্সিজেন সিলিন্ডার করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবার জন্য উৎসর্গ করে দিয়েছেন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের ব্যবসায়ী নূরুল আবছার সোহেল।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ব্যবসায়ী নূরুল আবছার সোহেল বলেন, আমার মা একজন হার্টের রোগী, চিকিৎসার প্রয়োজনে তার জন্য কেনা হয়েছিল একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার, তবে এই মহামারি করোনা সংক্রামক পরিস্থিতে ক্রমান্বয়ে পজিটিভ রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। অন্যান্য জেলা ও উপজেলায় বেড়েই চলছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশন ৫ বেড থেকে ১৯ বেডে উন্নীত করা হচ্ছে। কিন্তু পর্যাপ্ত পরিমাণ অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকট রয়েছে সেখানে। সরকারও এ মুহূতে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকট মেটাতে পারছে না, তাই দেশ এবং এলাকায় এ মহামারি করোনা সংক্রামক প্রতিরোধ করতে এবং আক্রান্ত রোগীদের বাঁচাতে সবার সহযোগিতার প্রয়োজন। চিন্তা করলাম এ মুহূতে টাকা দিয়েও এসব সিলিন্ডার পাওয়া মুশকিল। তাই মায়ের অনুমতি নিয়ে তার ব্যবহৃত অক্সিজেন সিলিন্ডারটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনের রোগীদের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হাতে তুলে দিলাম।

এদিকে সোহেলের এই মানবতার অংশগ্রহণের কথা উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে অনেকেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনের জন্য কিছু করার ইচ্ছা পোষণ করেন।

মহতি কাজে অংশ নিতে ইচ্ছা পোষণ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ও ব্যবসায়ী মো. আবু তাহের কোম্পানী।

তিনি বলেন, সোহেলের মতো বড় হৃয়দবান মানুষ খুব কমই আছেন। এই দুর্যোগের সময় মায়ের ব্যবহৃত অক্সিজেন সিলিন্ডার কয়জনে দিতে পারে, বলতে গেলে তার মা এখনো সুস্থ হয়ে ওঠেনি। এরপরও তিনি বড় ধরনের মানবিকতা দেখিয়েছেন। এভাবে অক্সিজেন সিলিন্ডার সংকট নিরসন করতে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসা দরকার।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন কচি বলেন, মহতি কাজে এগিয়ে আসতে বিত্তশালী মানুষের দরকার পড়ে না। সোহেলের মতো সাধারণ মানুষের মনমানসিকতা এবং বড় মনের মানুষ হতে হয়। সোহেলের এই মানবিক দৃষ্টিকোণ অন্যজনকে এ মানবতায় এগিয়ে আসতে সাহায্য করবে।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু জাফর মো. ছলিম জানান, গত ৪ জুন করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় জেলার সিভিল সার্জন, জেলা পরিষদের প্রতিনিধি, স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ রাজনীতিবিদ ও সাংবাদিকগণের উপস্থিতিতে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৫ বেডের আইসোলেশন বিভাগ ১৯ বেডে উন্নীত করার জন্য সিভিল সার্জন নির্দেশনা দেন। সেই পরিপ্রক্ষিতে অক্সিজেন সিলিন্ডার সংকটের কথা উঠে আসে মতবিনিময় সভায়। স্থানীয় এক যুবক আইসোলেশনে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকটের কথা জানতে পারেন এবং করোনা রোগীদের চিকিৎসা পাওয়ার জন্য তার মায়ের ব্যবহৃত অক্সিজেন সিলিন্ডারটি বিনামূল্যে আমাদের দিয়ে দেন।

তিনি আরো বলেন, এভাবে অন্যরা এগিয়ে এলে অক্সিজেন সিলিন্ডার সংকট দূর হবে এবং রোগীদের চিকিৎসায় কোনো ধরনেন শঙ্কা থাকবে না।