জীবননগরে সদ্যজাত শিশুর হার্ট, কিডনি, লিভার শরীরের বাইরে

মতিয়ার রহমান,জীবননগর: হার্ট, কিডনি, লিভারসহ শরীরের ভেতরের সব কিছুই আছে তবে বাইরে, এমনই একটি অদ্ভুত শিশুর জন্ম হয়েছে চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে।  উপজেলা শহরে অবস্থিত মনোয়ারা সনো সেন্টার অ্যান্ড নার্সিং হোমে শনিবার রাতে শিশুটি মৃত হিসেবে জন্ম নেয়। জন্মের পর দেখা যায় শিশুটির শারিরকি গঠন ঠিক থাকলেও শরীরের ভেতরের সব কিছু বাইরে ছড়ানো ছিটানো রয়েছে। অদ্ভুত শিশুর জন্মের কথা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ক্লিনিকে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায় ।

প্রসূতির পারিবারিক সূত্র জানান, ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার গোকুলনগর গ্রামের মামুন হোসেনের অন্তঃসত্বা স্ত্রী লাফিদা খাতুন(২০) ঘটনার দু’দিন আগে থেকেই পেটের যন্ত্রণা নিয়ে বিভিন্ন ডাক্তারের চিকিৎসা গ্রহণ করেন। কিন্তু কোনো কিছুতেই তিনি প্রশান্তি না পাওয়ায় পরিবারের লোকজন তাকে শনিবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে জীবননগর শহরের মনোয়ারা সনো সেন্টার অ্যান্ড নার্সিং হোমে ভর্তি করেন। সে সময়ও প্রসূতি লাফিদা খাতুন পেটের ব্যথায় ছটফট করছিলেন এবং রক্তক্ষরণ হতে থাকে। পেটের বাচ্চাও নড়াচড়া করছিল না। এ অবস্থায় ডাক্তারা আল্ট্রাসনো করে পেটের বাচ্চা মারা গেছে বলে সন্দেহ করেন।

এমন পরিস্থিতিতে প্রসুতির পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ক্লিনিকের চিকিৎসক দম্পতি ডা. রফিকুল ইসলাম ও ডা.জুলিয়েট পারউইন রাত সাড়ে ১০ টার দিকে ওই প্রসূতি মাকে অস্ত্রোপচার করলে শিশুটির জন্ম হয়। এমন শিশুর জন্ম হওয়ায় পরিবারের সদস্যরা হতাশ হয়ে পড়েন।

জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.জুলিয়েট পারউইন বলেন,অন্তঃসত্বা লাফিদা খাতুনকে অপারেশনের পর একটি মরা কন্যা শিশু বাচ্চার জন্ম হয় এবং সদ্যজাত শিশুটির হার্ট,কিডনি,লিভারসহ পেটের ভেতরের সব কিছুই ছিল পেটের বাইরে। সাধারণত এ ধরণের ঘটনা ঘটে না।