দৈনন্দিন কার্যক্রমে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে : পলক

স্পন্দন তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : প্রতিনিয়ত নতুন নতুন কৌশল ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। আমরা করোনা ভাইরাসের কারণে বাধ্য হয়ে ডিজিটাল প্ল্যাটফরম ব্যবহার করছি। এভাবেই আমাদের দৈনন্দিন সব কার্যক্রমে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) আইসিটি খাতের উদ্যোক্তাদের অর্থায়নসহ যাবতীয় ব্যাংকিং সেবার লক্ষ্যে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সমঝোতা স্মারক সই উপলক্ষে আয়োজিত ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক একথা বলেন।

বর্তমান সংকটকালীন আইসিটি কোম্পানিগুলোর জন্য ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ দেওয়ার লক্ষ্যে গৃহীত এ প্রয়াসকে স্বাগত জানান পলক। তিনি বেসিস ও আইসিটি ডিভিশন যৌথভাবে আইডিয়া, মডেল, অর্থ, টেকনোলজি ও কোলাবরেশন- এই পাঁচটি বিষয় নিয়ে কাজ করছেন বলে জানান।

বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির বলেন, গত দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বেসিস দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন ও সদস্যদের কল্যাণে নানাবিধ কার্যক্রম গ্রহণ করে আসছে। বর্তমানে করোনাজনিত সংকটকালীন তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান মারাত্মক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। উপরন্তু সরকার ঘোষিত আর্থিক প্রণোদনাও নানারকম জটিলতার কারণে পুরোপুরি গ্রহণ করতে পারছে না। এরকম বিরূপ পরিস্থিতিতে বেসিস সদস্যদের জন্য প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড এগিয়ে এসেছে এজন্য প্রাইম ব্যাংককে ধন্যবাদ জানাই।

দেশের ৩০টির মতো ব্যাংক স্থানীয়ভাবে তৈরি কোর ব্যাংকিং সলিউশন্স ব্যবহার করে উল্লেখ করে তিনি ব্যাংকগুলোকে স্থানীয়ভাবে তৈরি সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে দেশীয় সফটওয়্যার শিল্পের প্রতি আস্থা এনে এ শিল্পকে বড় করতে আহ্বান জানান।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাহেল আহমেদ, এমএসএমই ব্যাংকিং বিভাগের প্রধান সৈয়দ এম ওমর তৈয়ব এবং ব্র্যান্ড অ্যান্ড কমিউনিকেশন্স বিভাগের প্রধান নাজমুল করিম চৌধুরী, বেসিস সহ-সভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৯ ঘণ্টা, জুন ১৬, ২০২০