লাদাখ সীমান্তে সংঘর্ষ: ভারতের ৩, চীনের ৫ সেনা নিহত !

স্পন্দন আন্তর্জাতিক ডেস্ক :  দীর্ঘ ৪৫ বছর পর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হলো ভারত-চীন সীমান্তে। এতে এক সেনা কর্মকর্তা ও দুই জওয়ান নিহত হয়েছেন। সংঘর্ষে চীনের পাঁচ সেনা নিহত হয়েছে বলেও খবর প্রকাশ করেছে দেশটির সংবাদ মাধ্যম।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, গালওয়ান উপত্যকায় সেনা সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া চলাকালীন দু’পক্ষই সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এই অশান্ত পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে দুই দেশের উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তারা বৈঠকে বসেছেন।

মঙ্গলবার চীনের প্রথমসারির সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমসের খবর, শান্তিরক্ষার বার্তা মেনে চীনা সেনা যখন সীমান্ত থেকে ধীরে ধীরে পিছিয়ে আসছিল তখন হঠাৎ গুলি চালায় ভারত। তাতে চীনের পাঁচজন সেনা প্রাণ হারিয়েছেন এবং আহত হয়েছেন ১১ জন।

তবে ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফে এ বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

পাশাপাশি সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস টুইটারে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, ‘সোমবার ভারতীয় সেনারা দু’বার অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে এবং চীনা সেনাদের উপর আক্রমণ চালায়। এর ফলে দুই বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

আরও বলা হয়েছে যে, সীমান্ত পরিস্থিতি যথাযথ রাখতে এবং সীমান্ত অঞ্চলে শান্তি বজায়ের মাধ্যমে দ্বিপক্ষীয় ইস্যু সমাধান করতে সম্মত হয়েছে চীন ও ভারত।

তবে মঙ্গলবার (১৬ জুন) বেজিংয়ের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, ভারতই সীমান্ত পেরিয়ে চীনের সেনাদের আক্রমণ করে।

এএফপি জানিয়েছে, ‘বেইজিংয়ের তরফে ভারতের দিকে সীমান্ত অতিক্রম করে চীনের সেনাদের আক্রমণ করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স,ইন্ডিয়া টুইটে জানায়, ‘চীনের সঙ্গে সংঘর্ষে ভারতীয় সেনাবাহিনীর মৃত্যুর খবর সম্পর্কে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় খোঁজ-খবর করেছে। তাদের তরফে ভারতকে বলা হয়েছে ফের কোনো ঝামেলা বা সমস্যা তৈরি না করতে।

ইতোমধ্যে লাদাখে ভারত-চীন নিয়ন্ত্রণরেখায় উত্তেজনার পর দিল্লিতে বৈঠকে বসেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বৈঠকে রয়েছেন চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনেরাল বিপিন রাওয়াত। এছাড়াও রয়েছেন তিন বাহিনীর প্রধান ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকর।