বাঁকড়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জমি দখল করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ

এম আলমগীর, ঝিকরগাছা: যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক বসতভিটার জমি দখল করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। এ সময় মারপিট, গালিগালাজ ও কলেজ পড়–য়া ছাত্রীর শ্লীলতাহানী করেছেন বলে অভিযোগ এনেছেন এক বিধবা নারী। তিনি বাঁকড়া ইউনিয়নের ছোট খলশী গ্রামের মৃত আলিম উদ্দীন মোড়লের স্ত্রী আকলিমা বেগম এবং চেয়ারম্যানের প্রতিবেশী। এ ব্যাপারে তদন্ত পূর্বক রাস্তার কাজ বন্ধ করার দাবি জানিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন আকলিমা বেগম।

ভুক্তভোগী আকলিমা বেগম জানান, গত শুক্রবার সকালে বাঁকড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিছার আলী সরকারী প্রকল্পের টাকায় একটি ইটের সলিং তার নিজের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারই প্রতিবেশী ছোট খলশী গ্রামের মৃত আলিম উদ্দীন মোড়লের স্ত্রী আকলিমা বেগমের বসতভিটার উপর দিয়ে জোরপূর্বক রাস্তা নেয়ার কাজ শুরু করে। রাস্তা দিতে অস্বীকার করে চেয়ারম্যানের কাজে বাধা প্রদান করায় আকলিমা বেগমকে মারপিট শুরু করে এবং অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করেন। এসময় আকলিমার মেয়ে তামান্না খাতুন ছুটে এলে তাকেও বেদম মারপিট করে এবং তার গায়ের জামা ও ওড়না ছিঁড়ে দেয়। পরে প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে।

আকলিমা বেগম আরো জানান, অন্য পাশ দিয়ে অনেক আগে থেকেই তাদের একটি জমি রাস্তার জন্য ছেড়ে দেয়া আছে। কিন্তু সেই জমির উপর দিয়ে রাস্তা না করে, চেয়ারম্যান আমার বসতভিটার উপর দিয়ে জোরপূর্বক রাস্তা তৈরি করছে। ২০১০ সালে আমার স্বামী মারা যাওয়ার পরে অনেক কষ্ট করে আমি ৫ টি কন্যাকে মানুষ করার চেষ্টা করছি। কিন্তু চেয়ারম্যান ও তার ভাইয়েরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমাদের উপর অত্যাচার করে। এখন জমি দখল করে নিচ্ছে। আমি বিভিন্ন জায়গায় ফোন করেছি কিন্তু চেয়ারম্যানের ভয়ে কেউ আমাদের পক্ষে কথা বলে না। রাতে আমাদের ঘরের দরজায় বিভিন্ন লোক যেয়ে ধাক্কা দেয়। এখন আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছি।

সোমবার সকালে বিষয়টির তদন্ত পূর্বক রাস্তার কাজ বন্ধ করার দাবি জানিয়ে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছে আকলিমা বেগম।