ঝিকরগাছার মনিরা হত্যা মামলায় দুইজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর ঝিকরগাছার সোনাকুড় গ্রামের মনিরা খাতুন হত্যা মামলায় দুইজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে সিআইডি পুলিশ। মামলার তদন্ত শেষে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক জাকির হোসাইন। অভিযুক্ত আসামিরা হলো, সোনকুড় গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে জাহিদুর রহমান ও নোয়ালী গ্রামের মৃত ফকির আলীর ছেলে মশিয়ার রহমান। চার্জশিটে অভিযুক্ত দুইজনকে পলাতক দেখানো হয়েছে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১০ সালে মনিরা খাতুনের নোয়ালী গ্রামের হাসানুর রহমানের সাথে বিয়ে হয়। এ বিয়ের আগে মনিরাকে জাহিদুর রহমান শিমুল বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। এতে মনিরার পরিবার রাজি না হয়ে তাকে অন্য জায়গায় বিয়ে হলে জাহিদুর নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। একপর্যায়ে জাহিদুর নানা প্রলোভন দেখিয়ে মনিরার সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলে। ২০১৭ সালের ১১ মে মনিরা তার স্বামীর বাড়ি থেকে পিতার বাড়ি বেড়াতে আসে। এদিন সন্ধ্যায় মনিরা তার ছোট কাকীর ঘরে যায়। রাতে মনিরা, কাকী রাশিদা বেগম, ফুফু জাহানারা, চাচাত ভাই সাইফুল ইস্পি শরবত খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। পরদিন সকালে ঘরের দরজা খোলা দেখে মনিরার চাচী মিতা ঘরে যেয়ে দেখে মনিরা মেঝেতে মৃত অবস্থায় পড়ে আছে বাকিরা ঘুমে অচেতন হয়ে আছে। বাড়ির সকলকে ডেকে অচেতন তিনজনকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। ঘর থেকে উদ্ধার করা হয় মনিরার হাতে লেখা একটি চিঠি ও জাহিদুর রহমানের মানিব্যাগ। এরপর মনিরার স্বামী এসে জানায়, তার বাড়ি থেকে মনিরা ৬ লাখ টাকা ও যাবতীয় গহনা নিয়ে চলে এসেছে। জাহিদুর পরিকল্পিতভাবে মনিরাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর টাকা ও গহনা নিয়ে পালিয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে নিহতে মা নাজমা বেগম বাদী হয়ে জাহিদুরের নাম উল্লেখসহ অপরিচিত একজনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। এ মামলার তদন্ত শেষে স্বাক্ষীদের বক্তব্যে হত্যার সাথে জড়িত থাকায় ওই দুইজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।