সংকটাপন্ন সন্ত্রাসী হামলায় আহত আলতাপ, আসামিদের আত্মসমর্পণ

এম আলমগীর, ঝিকরগাছা : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার হাজিরবাগ ইউনিয়নের পাঁচপোতা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা আলতাপ হোসেন হত্যা প্রচেষ্টা মামলার ৮ জন আসামী পুলিশের কাছে আতœসমার্পণ করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে তারা ঝিকরগাছা থানায় এসে আতœসমার্পণ করেছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হিমানিষ বিশ্বাস জানিয়েছেন। এদিকে আলতাপ হোসেনের শারীরিক অবস্থার অবনতির কারণে তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি আইসিইউতে আছে বলে তার স্ত্রী জেসমিন আরা মুন্নী জানিয়েছেন।

জানা যায়, গত ২৬ জুন সন্ধ্যায় হাড়িখালী পাঁচপোতা বাজার থেকে  রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে পাঁচপোতা গ্রামের মসজিদ পার হয়ে পাঁকা জায়গায় আসলে একদল সন্ত্রাসী তার উপর আমলা চালায়। এসময় প্রাণে বাঁচার জন্য দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে সন্ত্রাসীরা তাকে তাড়িয়ে ধরে এলোপাতাড়িভাবে মারপিট শুরু করে। তার চিৎকারে গ্রামবাসী ছুটে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। আলতাপ হোসেনকে গ্রামবাসী উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হামলার সময় সন্ত্রাসীরা আলতাপ হোসেনের ব্যবহৃত পালসার মোটরসাইকেলটি ভাঙচুর করে। সন্ত্রাসী হামলায় আলতাপ হোসেনের দুটি পা ও দুটি হাত ভেঙ্গে যায়।

ঘটনায় আলতাপ হোসেনের স্ত্রী জেসমিন আরা মুন্নী বাদী হয়ে ঝিকরগাছা থানায় ৮ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই হিমানিষ বিশ্বাস জানান, পুলিশের অব্যাহত অভিযানের মঙ্গলবার দুপুরে সকল আসামী ঝিকরগাছা থানায় আতœসমার্পণ করেন। বুধবার সকালে তাদের জেল-হাজতে প্রেরণ করা হবে।

এদিকে আলতাপ হোসেনের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী জেসমিন আরা মুন্নী। মোবাইল ফোনে তিনি জানান, সোমবার যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল থেকে স্থানান্তর করে। করোনা পরিস্তিতিতে ঢাকার যেতে চায়নি। যে কারণে যশোর কুইন্স হাসপাতালে ভর্তি করেছিলাম। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অবস্থার অবনতি দেখে তিনি ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেন। তিনি জানান, রোগীর কিডনি, হার্ট ও ডায়বেটিসের সমস্যা রয়েছে। যে কারণে রোগী খুবই ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আছে। বর্তমানে তাকে ঢাকার কল্যাণপুর বাংলাদেশ স্পেসালাইস হাসপাতালে আইসিইউতে রাখা হয়েছে।