বাঘারপাড়ায় ছোটভাইকে হত্যার স্বীকারোক্তি বিপ্লবের

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে বাঘারপাড়ার ঘোষনগর গ্রামের বিপুল হোসেনকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে বড় ভাই বিপ্লব হোসেন। পারিবারিক কলহের জের ধরে বিপুলকে হত্যা করেছ বলে জানিয়েছে বিপ্লব। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম আসামির জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। বিপ্লব ঘোষনগর গ্রামের হরমুজ আলীর ছেলে।

বিপ্লব জানিয়েছে, তার মা ও পিতার সংসারে বনিবনা না হওয়ায় বিয়ে দিয়ে দুইজনকে সংসার আলাদা করেছে। তারা দুই ভাই মামা বাড়ি থাকত। সে দীর্ঘদিন ভারতে ছিল। বাড়িতে আসার পর তাদের সাংসারিক বিষয় নিয়ে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে গত ২৯ জুন সোমবার রাতে টিউবয়েলের হাতল খুলে রাস্তায় বসে ছিল। ছোট ভাই বিপুল ও জামাই ঘর থেকে বের হলে তাদের খুন করবে বলে হুমকি দিচ্ছিল। এরমধ্যে তারা দুইজন বের হয়ে আসলে ছোট ভাই বিপুলের মাথায় টিউবয়েলের হাতল দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। গ্রামবাসী তাকে ধরে পুলিশে দিয়েছে। শুনেছে ছোট ভাই বিপুল মারা গেছে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, পারিবারিক কলহের জের ধরে বিপ্লব তার ছোট ভাই বিপুলকে টিউবয়েলের হাতল দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যা করেছে। এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী শুকুরন বেগম বাদী হয়ে বাঘারপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার অভিযোগে আটক বড় ভাই বিপ্লবকে বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করা হলে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে ওই জবানবন্দি দিয়েছে।