যশোরে মাছচাষির ওপর হামলার ঘটনায় মামলা, আসামি ৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর সদর উপজেলার হৈবতপুর ইউনিয়নের বিরোধপূর্ণ লাউখালী বাওড়ের মৎস চাষি মকবুল হোসেন ও তার পরিবারের লোকজনকে মারপিটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় মকবুল হোসেন ৮ জনের নাম উল্লেখ করে শুক্রবার রাতে কোতয়ালি থানায় মামলা করেছেন।

আসামিরা হলো, ভাগলপুর গ্রামের মীর বুুলুর ছেলে লাভলু, আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক, মৃত মদন দফাদারের ছেলে হারুন, মৃত আব্দুল মজিদ গাজীর ছেলে ওবায়দুল, অজিত ব্যাপারীর ছেলে নজরুল ইসলাম, মৃত পরশউল্লাহর ছেলে মশিয়ার রহমান, নাটুয়াপাড়া গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে আব্দুল মতিন মন্ডল, একই গ্রামের দলিল উদ্দিন দফাদারের ছেলে লিটন। এছাড়া অজ্ঞাত আরো ৭/৮জনের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

ভাগলপুর গ্রামের ছবেদ আলী মন্ডলের ছেলে মকবুল হোসেন দায়ের করা এজাহারে উল্লেখ করেছেন, একই গ্রামের কালাম, বিল্লাল হোসেন, আকরাম হোসেন, মোজাহার ও কাশেম আলীকে নিয়ে তিনি লাউখালী বাওড় সরকারের সকল নিয়মনীতি মেনে জমি লিজ নিয়ে মাছ চাষ করে আসছে। আসামিরা প্রায় সময় তাদেরকে ওই বাওড়ের মাছ বিক্রির টাকার ভাগ চায়। কিন্তু ভাগ দিতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করলে আসামিরা তাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। গত ১৪ জুন বিকেল ৫ টার দিকে তিনি (মকবুল হোসেন) ভাগলপুর গ্রামস্থ নিজ বাড়ির উঠানে ছিলেন। সে সময় আসামিরা সেখানে গিয়ে বাওড়ের মাছ বিক্রি করার টাকার ভাগ চায়। তিনি দিতে রাজি না হওয়ায় আসামিরা তার ওপর হামলা করে। এ সময় মকবুল হোসেনের স্ত্রী তাসলিমা এগিয়ে আসলে তাকে মারপিট করে শ্লীলতাহানী ঘটনায়। তার কাছ থেকে ১২ আনা ওজনের একটি সোনার চেইন কেড়ে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় ফের হুমকি দেয়।