যশোরে নতুন আক্রান্ত ৩২

বিল্লাল হোসেন: যশোরে নতুন করে ৩২ জনের কোভিড-১৯ নভেল করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে সেবিকা, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ ও ব্যবসায়ী রয়েছেন। ৩২ জনের মধ্যে যশোর সদর উপজেলায় রয়েছেন ২৬ জন। যার অধিকাংশের বসবাস যশোর পৌরসভায়। এই নিয়ে রোববার পর্যন্ত জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৩২৮ জনে। এরমধ্যে সদর উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা রয়েছেন ৬৮৪ জন।

যশোর সিভিল সার্জন অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ জানিয়েছেন, রোববার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার থেকে পাঠানো ৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ৩১ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। এ ছাড়া খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (খুমেক ) ল্যাব থেকে

১ জনের করোনা শনাক্তের ফলাফল আসে। যবিপ্রবির পাঠানো ফলাফলে ১ জন রোগীর নাম আমাদের তালিকায় নেই। অন্য জেলার রোগীর ফলাফল যশোরের তালিকায় চলে আসতে পারে। নতুন শনাক্ত ৩১ জনের মধ্যে যশোর সদর উপজেলায় ২৬ জন, বাঘারপাড়া উপজেলায় ৪ জন ও কেশবপুর উপজেলায় ১ জন ।

ডা. রেহেনেওয়াজ জানান,  রোববার নতুন করে ১৪ জনকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। আর করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে আরও ৯৭ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য যবিপ্রবির জেনোম সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য উপজেলার মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রন) ডা. এ এন এম নাসিম ফেরদৌস জানান, নতুন করে আক্রান্তদের ২৬ জনের মধ্যে ৫ জনকে অন্যত্র রেফার্ড করা হয়েছে। আর ৮ জনের হদিস মেলানো যায়নি। তাদের মুঠোফোনের নম্বর বন্ধ রয়েছে। তবে সন্ধান মেলানোর চেষ্টা চলছে। সন্ধান পাওয়া ১৪ জন হলেন যশোর বেজপাড়া সাদেক দারোগা মোড়ের বাসিন্দা যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সেবিকা (৩২), একই এলাকার বাসিন্দা হাসপাতালের নারী স্বাস্থ্যকর্মী (২৮), বেজপাড়ার বসবাসকারী ট্যাফিক পুলিশের ১ জন সদস্য (৫০), পুলিশ লাইন এলাকায় বসবাসকারী পুলিশ কনেস্টেবল ১ জন (২৯), পুরাতন কসবা কাজীপাড়ার বেগম মিলের সত্বাধিকারী পুরুষ (৫৮), ষষ্টিতলার বাসিন্দা খাদ্য কর্মকর্তা পুরুষ (৪৮), বারান্দিপাড়া এলাকার ঠিকাদার পুরুষ (৬২), রেল স্টেশন আদ-দ্বীন হাসপাতাল এলাকার একই পরিবারের ২ জন পুরুষ ও ১ জন নারী (৫০),  ঘোপ নওয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা ও একতা হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতা কর্মী নারী (৩৮), পালবাড়ি পাওয়ার হাউজ এলাকার ১ চাকুরিজীবী পুরুষ (৬২), আম্বিকা বসু লেন এলাকার ১ জন নারী (৬২) ও ছোট বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের ১ জন কৃষক (৩৫)।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সূত্রে জানা গেছে, ১৯ জুলাই পর্যন্ত যশোর জেলায় মোট করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৩২৮ জন। এরমধ্যে সদর উপজেলায় ৬৮৪, শার্শা উপজেলায় ১১১ জন, ঝিকরগাছা উপজেলায় ৬৭ জন, চৌগাছা উপজেলায় ৬৬ জন, বাঘারপাড়া উপজেলায় ৩১ জন, অভয়নগর উপজেলায় ২২৭ জন, মণিরামপুর উপজেলায় ৬৫ জন ও কেশবপুর উপজেলায় ৭৬ জন রয়েছেন।

যবিপ্রবির এনএফটি বিভাগের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. শিরিন নিগার জানিয়েছেন, জেনোম সেন্টারে যশোর জেলার  ৩১ জন ছাড়াও মাগুরা জেলার ২২ নমুনা পরীক্ষায় ৯ জন, সাতক্ষীরা জেলার ৭৫ নমুনা পরীক্ষায় ১৬ জনের শরীরে কোভিডের জীবাণু পাওয়া গেছে। সবমিলিয়ে ১৯২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫৬ জনের করোনা পজেটিভ ও ১৩৬ জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।

যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন মুঠোফোনে জানিয়েছেন, এই পর্যন্ত মোট ৭৫৫৯ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। ফলাফল পেয়েছি ৬০৪৫ জনের। এরমধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩২৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬৭১ জন। এ ছাড়া ২০ জন নারী পুরুষের মৃত্যু হয়েছে।