একদিনে করোনায় মৃত্যু ২৮, শনাক্ত ২৭৭২

স্পন্দন ডেস্ক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট ৩ হাজার ১১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে ২ হাজার ৭৭২ জনের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত ২ লাখ ৩৭ হাজার ৬৬১ জনের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হলো।

শুক্রবার (৩১ জুলাই) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

বর্তমানে ৮২টি পরীক্ষারে টেস্ট হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৩ হাজার ১৭০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয়েছে ১২ হাজার ৬১৪টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ১১ লাখ ৭৬ হাজার ৮০৯টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় আরো ২ হাজার ৭৭২ জনের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে। ফলে শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা এখন ২ লাখ ৩৭ হাজার ৬৬১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে তিন হাজার ১১১ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরো ২ হাজার ১৭৬ জন। এতে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৩৫ হাজার ১৩৬ জন। পরীক্ষা বিবেচনায় ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২১.৯৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৬.৮৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ২২ জন পুরুষ ও ৬ নারীর মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বয়স বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২১ থেকে ৩০ বছরের ২ জন, ৩১ থেকে ৪০ পর্যন্ত ৩ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছর পর্যন্ত ২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৭ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১০ জন এবং ৭১ থেকে ৮০ পর্যন্ত ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিভাগীয় পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ১৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৮ জন, খুলনা বিভাগে ২ জন, রাজশাহী বিভাগে ৩ জন, বরিশাল বিভাগে একজন এবং রংপুর বিভাগে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে হাসপাতালে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে আরো ৭৫৯ জনকে এবং এ পর্যন্ত আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৫০ হাজার ৭১০ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন এক হাজার ১৭ জন এবং এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৩২ হাজার ৪০০ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ১৮ হাজার ৩১০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে ২ হাজার ৮৯ জনকে। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮৬ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৬৯০ জন, এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টিন থেকে মোট ছাড় পেয়েছেন তিন লাখ ৭৯ হাজার ৬৬২ জন। বর্তমানে হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৫৬ হাজার ৮২৪ জন।