লোহাগড়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ : সপরিবারকে হত্যার হুমকি

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : নড়াইলের লোহাগড়ার দিঘলিয়া ইউপির কুমড়ি গ্রামে গৃহবধূ ও এক সন্তানের জননীকে ধর্ষণের পর মারপিট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই নারী বর্তমানে নড়াইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনায় মামলা করলে সপরিবারকে হত্যা করবে বলে হুমকি দেয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দিঘলিয়া ইউপির কুমড়ি গ্রামে গৃহবধূ ও এক সন্তানের জননী (২৪) গত বুধবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশর্^বর্তী পুকুরে হাত-পা ধুতে গেলে কুমড়ি গ্রামের রিপন মোল্যা (৪১) এবং ওয়াহেদুল (৩০)  জোরপূর্বক নির্জন স্থানে ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ধর্ষকসহ কুমড়ি গ্রামের প্রভাবশালী তুহিন শেখের শেল্টারে  সালিশের নামে ওই এলাকার জাকির (২৫), নুরুন্নবী (২৭), আশিক সিকদার (২৫) কয়েকজনে ওই গৃহবধূকে অবরুদ্ধ করে মারপিট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে। ধর্ষকসহ প্রভাবশালীরা ওই গৃহবধূ ও তার পিতাকে এ বিষয়ে কারো কাছে মুখ না খুলতে ও মামলা না করতে হুমকি দেয়। নির্যাতিত গৃহবধূর পিতা  অভিযোগ করেন, মামলা করলে পরিবারের সকলকে তারা জবাই করার হুমকি দিয়েছে। গত শুক্রবার সকালে সপরিবারে পালিয়ে এসে নড়াইল সদর হাসপাতালে মেয়েকে ভর্তি করি। তিনি ধর্ষকসহ দোষীদের কঠিন শাস্তি দাবি জানিয়েছেন।

নড়াইল সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, ওই গৃহবধূকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে। ধর্ষণের অভিযোগ থাকায় নারীর ডাক্তারী পরীক্ষা করা হয়েছে।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে মামলারও  প্রস্তুতি চলছে।