যশোরে আক্রান্ত ২২০০ ছাড়ালো

বিল্লাল হোসেন : যশোরে পূর্বে আক্রান্ত মেডিকেল কলেজের গাইনী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রবিউল ইসলামের পরিবারের ৩ জনসহ নতুন করে ৫৬ জনের কোভিড-১৯ নভেল করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তদের মধ্যে রাজনীতিক, কলেজ শিক্ষক  ও ব্যাংকের ব্যবস্থাপক রয়েছেন। এ নিয়ে রোববার পর্যন্ত জেলায় করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২২০৮। বিষয়টি নিশ্চিত করে সিভিল সার্জন অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ। তিনি জানান, এদিন  আরও ১ জনের মৃত্যুর তথ্য রেকর্ড করা হয়েছে।

ডা. রেহেনেওয়াজ আরো জানিয়েছেন, রোববার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার থেকে পাঠানো ১৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ৫৬ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। এরমধ্যে যশোর সদর উপজেলায় ২৫ জন, শার্শা উপজেলায়  ৭ জন, ঝিকরগাছা উপজেলায় ৫ জন, চৌগাছা উপজেলায় ৬ জন মণিরামপুর উপজেলায় ২ জন, কেশবপুর উপজেলায় ৩ জন, বাঘারপাড়া উপজেলায় ২ জন  ও অভয়নগর উপজেলায় ৬ জন। ডা. রেহেনেওয়াজ আরো জানান, এদিন করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে আরও ১৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য যবিপ্রবির জেনোম সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। দৈনিক সমাজের কথার নিজস্ব প্রতিবেদক লাবুয়াল হক রিপন ও এস হাসমী সাজুসহ সুস্থ হয়েছেন ৩৪ জন। তিনি জানান, করোনায় আক্রান্ত হয়ে শনিবার রাতে নিজ বাড়িতে মারা গেছেন যশোর শহরের আর বি কে রোড চোরমারা দিঘীর পশ্চিম পাড়ের বাসিন্দা আজিজুল ইসলামের স্ত্রী নুরুননাহার (৪৫)। করোনা শনাক্ত হওয়ার পর তিনি গত ১ আগস্ট যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। ৫ আগস্ট তিনি ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেছিলেন।

যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রন) ডা. নাসিম ফেরদৌস জানান, আাক্রান্তদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন, শহরের পোষ্ট অফিস পাড়ার বাসিন্দা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা (৬৭), চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড এলাকার বাসিন্দা যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক পূর্বে করোনায় আক্রান্ত ডা. রবিউল ইসলামের পরিবারের ৩ জন, যশোর সরকারি মহিলা কলেজের এক শিক্ষক কামরুন নাহার (৪৭), পুরাতন কসবা এলাকার বাসিন্দা ও ১ টি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক (৪০)

ও যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের পরিছন্নকর্মী নিমাই চন্দ্র দাশ (৫৭।  আক্রান্তের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। তারা হোমআইসোলেশনে রয়েছেন।

যবিপ্রবির অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. তানভীর ইসলাম জানিয়েছেন, জেনোম সেন্টারে যশোর জেলার ৫৬ জন ছাড়াও মাগুরা জেলার ৩৫ নমুনা পরীক্ষায় ১১ জন ও নড়াইল জেলার ৪৩ জনের নমুনা পরীক্ষা ২৪ জনের শরীরে কোভিডের জীবাণু পাওয়া গেছে। সবমিলিয়ে ২৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৯১ জনের করোনা পজিটিভ এবং ১৫৬ জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।

যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, রোববার পর্যন্ত জেলার ১০৩৬৬ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। ফলাফল এসেছে ৯০১৭ জনের। এর মধ্যে করোনা পজেটিভ ২২০৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১২৭০ জন। মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৩২ জন হয়েছে।