যশোরে ২১ সরকারি প্রাথমিক  বিদ্যালয়ের নাম শ্রুতিমধুর না, তালিকা প্রস্তুত

মিরাজুল কবীর টিটো : যশোরে শ্রুতিমধুর নাম না এমন ২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে তালিকা প্রস্তুত করেছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কর্তৃপক্ষ। নাম পরিবর্তনের জন্য এসব বিদ্যালয়ের  তালিকা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরে পাঠানো হবে। সেখান থেকে বিদ্যালয়ের নাম শ্রুতিমধুর রাখা হবে বলে জানান জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম। এ সপ্তাহের শেষের দিকে তালিকা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন জেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আমজাদ হোসেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়,  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদফতর থেকে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে দেশের যেসব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম শ্রুতিমধুর  না সেসব বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে নতুন করে নাম রাখা হবে। সে নাম হবে শিক্ষা ও সংস্কৃতির সাথে মিল রেখে শ্রুতিমধুর। এলক্ষে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক ( পলিসি ও অপারেশন) খালিদ আহমেদ সাক্ষরিত চিঠি এসেছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে। সেই চিঠিতে শ্রুতিমধুর নাম না এমন  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামের তালিকা পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়েছে।

সোমবার জেলা শিক্ষা অফিস  থেকে আট উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারদের সাথে জুম সভা করে তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। শ্রুতিমধুর নাম না এমন ২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো হচ্ছে, সদরে শ্রীপদ্দি রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়,জোত রহিম রেজিস্টার প্রাথমিক বিদ্যালয়, টিকেজি সম্মিলনী রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, নোঙরপুর রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাথাভাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সিরাজসিংহা তরফদার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কেশবপুরের গড়ভাঙ্গা মাঝপাড়া রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, নেপাকাটি রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, পাত্রপাড়া রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, অভয়নগরের আদিলপুর বিভাগদি রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, কলারাবাদ সদ্য জাতীয় করণকৃত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মণিরামপুরের চেৎলা ডুমুর খালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হানুয়ার কোমলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সুন্দ্রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বিবিজি এইচ রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, চৌগাছার মাংগীর পাড়া রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাধবিলা ঝাউতলা রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, আড়ারদহ নিমতলা রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুষ্টিয়া ফতেহপুর রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, মশ্মমপুর রেজিস্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয়, তজবীজপুর কমিউনিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম জানান, শ্রুতিমধুর নাম না এমন বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করার কাজটা সরকারের একটি মহৎ উদ্যোগ। কারন শিক্ষা ও সংস্কৃতির সাথে মিল না রেখে যেসব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম রয়েছে সেগুলো পড়তে বিব্রতকর লাগে। তাই সরকার বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন কাজকে স্বাগত জানাই।