মহম্মদপুরে তদন্তকর্মকর্তার সামনে বাদীকে মারপিট : মামলা, প্রতিবাদ সমাবেশ

সুব্রত সরকার, মহম্মদপুর (মাগুরা): মহম্মদপুর সদরের কলেজে সংলগ্ন এলাকায় জমাজমির তদন্তকালে তদন্তকারী কর্মকর্তার সামনে প্রতিপক্ষের লোকজন বাদীপক্ষের জমির মালিক বাবলু চ্যাটার্জী’ (৪৮) কে বেধড়ক মারপিট করেছে। এ ঘটনায় মহম্মদপুর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে সন্ধ্যায় পূজা উদযাপন পরিষদ বিক্ষোভ  মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সুত্রে জানাগেছে, মহম্মদপুর উপজেলা সদরের আমিনুর রহমান কলেজ সংলগ্ন উত্তর পাশ্ববর্তী ৭৭ নম্বর বাজার রাধানগর মৌজার এসএ ৪৪ নম্বর খতিয়ানের ৩২ নম্বর দাগের একখন্ড জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি উচ্চ আদালতের রায় ও স্থানীয় বিভিন্ন এলাকার গণ্যামান্য ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ নিষ্পত্তি লক্ষ্যে একাধিকবার সালিশী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উভয় পক্ষের লোকজন অংশ নেন। সালিশী বৈঠকে জমির বিভাজন অনুযায়ী  নিস্পত্তিকৃত জায়গায় বাদী পক্ষ ঘর নির্মাণ করতে গেলে মোস্তাফিজুর রহমান গং আবারও বাধা প্রদান করেন। সেই বিষয়ের প্রতিকার চেয়ে মাগুরার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সুকান্ত চক্রবর্তী বাদী হয়ে আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে তদন্ত করে প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য নির্দেশনা দেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের রাজস্ব শাখা।  মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমান উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসার প্রশান্ত কুমার দে’কে সরেজমিন তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নিদের্শ দেন।

বুধবার দুপুরে তদন্তের জন্য হাজির হন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার দে। তার উপস্থিতিতে প্রতিপক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান, তার কয়েক ভাই ও পরিবারের লোকজন খরিদ সূত্রে মালিক বাবলু চ্যাটার্জীর উপর চড়াও হয় এবং কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে হামলা করে। এ সময় বাবলু চ্যাটার্জী গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে আসামিদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মহম্মদপুর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সামাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলা সদরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপ্না রানী বিশ্বাস, শ্রী কানু তেওয়ারী, জগন্নাথ সাহা প্রমুখ। বক্তারা অবিলম্বে ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।