যশোরে নতুন শনাক্ত ৬১, মৃত্যু ১ :যবিপ্রবিতে ৫ দিন করোনা পরীক্ষা বন্ধ

বিল্লাল হোসেন  : বুধবার যশোরে মা- ছেলেসহ নতুন করে ৬১ জনের কোভিড-১৯ নভেল করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হয়ে হোমআইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ১ জন মারা গেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ। এদিকে, ১২ আগস্ট বুধবার থেকে ৫ দিন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে করোনা পরীক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছেন কর্তৃপক্ষ।

ডা. রেহেনেওয়াজ জানিয়েছেন, বুধবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার থেকে পাঠানো ১৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ৫৯ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। এদিন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (খুমেক) ল্যাব থেকে আরো ২ জনের পজেটিভ ফলাফল আসে। সেই হিসেবে নতুন করে ৬১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে যশোর সদর উপজেলায় ১২ জন, শার্শা উপজেলায় ৮ জন, চৌগাছা উপজেলায় ৯ জন, কেশবপুর উপজেলায় ৮ জন ও বাঘারপাড়ায় উপজেলায় ১ জন। ডা. রেহেনেওয়াজ আরো জানান, যবিপ্রবির জেনোম সেন্টারে ৫ দিন করোনা পরীক্ষা বন্ধ ঘোষণার কারণে করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে আরও ২১৩ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য খুমেক ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। এদিন ৫৪ জন করোনামুক্ত ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্যবিভাগ। ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, ৪ আগস্ট করোনা শনাক্তের পর যশোর শহরের কাজীপাড়া কাঠালতলার বাসিন্দা সমির সিংহ (৫৫) হোমআইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বুধবার ভোরে তিনি মারা যান।

যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রন) ডা. আদনান ইমতিয়াজ জানান, যশোর সদরে আক্রান্ত ১২ জনের মধ্যে ১ জন কুষ্টিয়ার কুমারখালী এলাকার বাসিন্দা আসাদুজ্জামান (৩২)। তিনি যশোর সদর থেকে নমুনা পরীক্ষা করতে দিয়েছিলেন। তার ফলাফল কুষ্টিয়া সিভিল সার্জনের কাছে পাঠানো হয়েছে। বাকি ১১ জন হলেন ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের বাসিন্দা মাহমুদুল (৩৮), কাজীপাড়া আমতলা মোড়ের মহিরুল আযম (৬৭), চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডের মাছ বাজার এলাকার শাহিদুর রহমান (৪৩), বেজপাড়া শ্রীধর পুকুর পাড় এলাকার লক্ষী (৩১), তার ছেলে প্রতিক (১০) জিআউডি রোডের বাসিন্দা জিহাদ হাসান (৩০), শেখহাটি জামরুলতলা এলাকার হারুন অর রশিদ (৩২) ও নওদাগ্রামের বাসিন্দা জেলা প্রশাসক অফিসের কর্মচারী নাজমুল হাসান সুমন (৩৮)। আক্রান্তরা সকলেই হোমআইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। যবিপ্রবির অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. তানভীর ইসলাম জানিয়েছেন, জেনোম সেন্টারে যশোর জেলার ৫৯ জন ছাড়াও মাগুরা জেলার ৭৫ নমুনা পরীক্ষায় ২৪ জন ও নড়াইল জেলার ৫৯ জনের নমুনা পরীক্ষা ১৭ জনের শরীরে কোভিডের জীবাণু পাওয়া গেছে। সবমিলিয়ে ২৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০০ জনের করোনা পজিটিভ এবং ১৮১ জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।

যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, বুধবার পর্যন্ত জেলার ১০৮৬০ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। ফলাফল এসেছে ৯৫৪৫ জনের। এরমধ্যে করোনা পজেটিভ ২৩৮৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৩৬২ জন। মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৩ জন।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারের সহকারী পরিচালক ড, ইকবাল কবির জাহিদ জানিয়েছেন, ল্যাব জীবাণুমুক্তকরণ ও নতুন মেশিন সংযোজনের কারণে ১২ আগস্ট থেকে আগামী ১৬ আগস্ট পর্যন্ত করোনা পরীক্ষা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ১৭ আগস্ট থেকে যথারীতি করোনা পরীক্ষা কার্যক্রম শুরু করা হবে। জেনোম সেন্টারে নমুনা পাঠানো জেলার সিভিল সাজনদের ই-মেইল বার্তার মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হয়েছে।