যশোরে করোনায় মৃতদেহ সৎকার  সেবাকার্য বিষয়ক মতবিনিময়

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে করোনায় মৃতদেহ সৎকার সেবাকার্য বিষয়ক মতবিনিময় সভা সোমবার বিকেলে রামকৃষ্ণ আশ্রমের পাঠাগারে অনুষ্ঠিত হয়েছে। রামকৃষ্ণ মিশনের সার্বিক সহযোগিতায় সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ যশোরের উদ্যোগে করোনায় মৃতদেহ সৎকার সেবাকার্য সেবাসংঘের উদ্যোগে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ তমিজুল ইসলাম খান। সভাপতিত্ব করেন আশ্রমের সম্পাদক স্বামী জ্ঞানপ্রকাশানন্দ মহারাজ। স্বাগত বক্তব্য দেন আশ্রমের সহসম্পাদক আত্মবিভানন্দ মহারাজ। করোনায় মৃতদেহ সৎকার সেবাকার্য সেবাসংঘের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ যশোরের প্রধান সমন্বয়ক বিজন কুমার চৌধুরী।

আলোচনা করেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক যোগেশ দত্ত, করোনায় আক্রান্ত হয়ে সদ্য সুস্থ হওয়া ডাক্তার বিধান কৃষ্ণ সাহা। সভায় পুলিশ প্রশাসনের প্রতিনিধিত্ব করেন যশোর কোতয়ালী মডেল থানার সাব- ইন্সপেক্টর মফিজুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাব যশোরের সাবেক সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি প্রণব দাস প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন আশ্রমের সদস্য পঙ্কজ দে।

সভাপতির বক্তব্যে স্বামী জ্ঞানপ্রকাশানন্দ মহারাজ বলেন, বর্তমানে বৈশি^ক মহামারি সকলেই আতঙ্কগ্রস্ত ও বিপর্যস্থ। তার প্রেক্ষাপটে প্রতিটি দেশের সরকার, জনগণ সকলেই অসহায় লোকদের পাশে সেবায় নিয়োজিত। তার ধারাবাহিকতায় মহামারির প্রথম পর্যায় থেকে রামকৃষ্ণ মিশনও তাদের সামর্থ নিয়ে সেবাকার্য শুরু করে। তিনি বলেন, লক্ষ্য করা গেছে, করোনায় মৃত বিশেষ করে সনাতন ধর্মের মানুষদের শ্মশানে নিয়ে সৎকারের জন্য এগিয়ে আসতে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে ভুগছে। বিশেষ করে অসহায় ও দরিদ্রদের জন্য এ বিষয়টা এক গুরুতর সমস্যা। এ জন্য রামকৃষ্ণ মিশন ও সনাতন বিদ্যার্থী সংসদের সদস্যগণ করোনায় মৃতদের সৎকার করার মত সেবাকাজে এগিয়ে এসেছে। তিনি এ সেবাকার্যে স্থানীয় প্রশাসন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

রামকৃষ্ণ মিশনের সার্বিক সহযোগিতায় সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ যশোরের এমন উদ্যোগে সাধুবাদ জানিয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকলপ্রকার সহযোগিতা করার আশ^াস দেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।