সিনহা খুনের তদন্তে সমন্বয়হীনতা নেই : র‌্যাবপ্রধান

বিডিনিউজ: র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যামামলার তদন্ত ঘিরে বাহিনীগুলোর মধ্যে কোনো সমন্বয়হীনতা নেই।

অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা খুনের ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে করা এই মামলার তদন্তকারী সংস্থার প্রধান আল মামুন সোমবার বিকালে হত্যাকা-স্থল পরিদর্শন শেষে একথা বলেন।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার তদন্ত ‘অত্যন্ত গুরুত্ব ও পেশাদারিত্বের’ সঙ্গে করছে র‌্যাব।

“তদন্ত কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে যা যা করা প্রয়োজন করা হচ্ছে।”

এরই অংশ হিসেবে এ পরিদর্শন জানিয়ে আল মামুন বলেন, “আমি নিজেই অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে এই মামলার তদন্ত কার্যক্রম তদারকি করছি। অত্যন্ত পেশাদারিত্বের এই সিনহা হত্যা মামলার তদন্ত কার্যক্রম চলছে।

“এই ঘটনা নিয়ে বাহিনীগুলোর মধ্যে কোনো সমন্বয়হীনতা নেই। সুষ্ঠুভাবে তদন্ত কার্যক্রম চলছে।”

গত ৩১ জুলাই কক্সবাজারের টেকনাফে তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারান অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা, যা ব্যাপক আলোড়ন তোলে।

সিনহা গুলি করতে উদ্যত হলে পাল্টা গুলি চালানো হয় বলে প্রথমে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হলেও তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সাবেক সেনা কর্মকর্তারা সরাসরি পুলিশ কর্মকর্তাদের দায়ী করেন।

এই প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পুলিশ, সেনাবাহিনী ও প্রশাসনের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এর মধ্যে সিনহার বোন নয়জন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে হত্যামামলা করলে আদালতের নির্দেশে র‌্যাব তার তদন্তের দায়িত্ব নিয়ে আসামি পুলিশ সদস্যদের রিমান্ডে নেয়।

এই পরিস্থিতিতে গত ৫ আগস্ট সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ এবং পুলিশপ্রধান বেনজীর আহমেদ কক্সবাজার পরিদর্শন করে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেছিলেন, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উসকানি দিয়ে সেনাবাহিনী ও পুলিশের মধ্যে সম্পর্কে যেন কেউ চিড় ধরাতে না পারে, সেজন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, আল মামুন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে বিকাল ৪টার দিকে বাহারছড়ার শামলাপুরে যান। ৫টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ফিরে আসেন।