খবির উর রহমান কলেজ > ১৯ অভিযোগে অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত, তদন্ত কমিটি গঠন


নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোর বাঘারপাড়ার খবির উর রহমান কলেজের অধ্যক্ষ শামছুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করেছেন কলেজ পরিচালনা কমিটি। সরকারি নির্দেশ অমান্য, কর্তব্য অবহেলাসহ ১৯টি অভিযোগের কারণ দর্শানো নোটিশের সন্তোষজনক জবাব না দেয়ায় শনিবার দুপুরে ম্যানেজিং কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই সাথে এদিন অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। শনিবার প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুর মোহাম্মদ পাটোয়ারী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এদিকে, গত ১৯ আগস্ট কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে কেন অব্যহতি দেয়া হবে না তার কারণ দর্শাতে নোটিশ দিয়েছে যশোর শিক্ষা বোর্ড।
অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ হলো, সংসদ সদস্যকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য, চাকরির শর্তাবলী লংঘন, সরকারি নির্দেশ অমান্য, কলেজের অভ্যন্তরীন আয় ব্যয়ের হিসাব নিরীক্ষণ উপকমিটি ছাড়া নিজে বেচা কেনা করা, পেশাগত অসদাচরণ, কমিটির সিদ্ধান্ত অমান্য করে অভিযুক্ত এক প্রভাষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া, ফৌজদারী মামলার আসামি ও কারাবাসের পরও তাকে প্রশ্রয় দেয়াসহ ১৯ টি অভিযোগ আনা হয় অধ্যক্ষ শামসুর রহমানে বিরুদ্ধে।
এ বিষয়ে সভাপতি নুর মোহাম্মদ বলেন, অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ রয়েছে। দু’দফা কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলেও তিনি সন্তোষজনক জবাব দিতে ব্যর্থ হয়েছেন। ফলে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
এ বিষয়ে অধ্যক্ষ শামসুর রহমান বলেন, সভাপতির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে ডিসি বরাবর অভিযোগ দেয়া হয়েছিল। এছাড়া পূর্নিমা রানী নামের একজন শিক্ষককে বহিস্কারের জন্য তিনি উঠে পড়ে লেগেছিলেন। আমি তার বিরোধিতা করেছিলাম। এসব ঘটনার জেরে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।