খাজুরায় অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের দাফন সম্পন্ন

খাজুরা (যশোর) প্রতিনিধি: যশোরের খাজুরার শিক্ষক এমজেকে মতিউর রহমানের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল রাতে তার মৃত্যু হয়। তিনি স্থানীয় মির্জাপুর আদর্শ মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ। স্থানীয় বন্দবিলা ইউনিয়নের গাইদঘাট গ্রামের মৃত হাতেম আলী মাষ্টারের ছেলে। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ২ বছর আগে তিনি ব্রেন স্ট্রোক করেন। পরে ফুসফুসে পানি জমা ও নিউমোনিয়াসহ জটিল রোগে আক্রান্ত হন। ঢাকায় দু’দফায় উন্নত চিকিৎসা শেষে সম্প্রতি বাড়ি ফিরলে গতকাল রাত সাড়ে তিনটার দিকে তিনি মারা যান। এদিকে, শিক্ষক মতিউর রহমানের মৃত্যুর খবর শুনে যশোর ৪ আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায় তার বাড়িতে আসেন। এ সময় তিনি মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানান। এছাড়াও এদিন বিকেল ৪টায় মহরহুমের নিজ বাড়িতে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ মোল্যা, খাজুরা সরকারি শহীদ সিরাজুদ্দীন হোসেন মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক, উপাধ্যক্ষ আমিনুর রহমান, যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সম্পাদক দেওয়ান মোর্শেদ আলম, মির্জাপুর আদর্শ মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ তরিকুল ইসলাম, চিত্রা মডেল কলেজের অধ্যক্ষ কোহিনুর রহমান, মাগুরার শালিখা উপজেলার ছয়ঘরিয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম, সাবেক অধ্যক্ষ মাও. আব্দুল মতিন, সুজনের বাঘারপাড়া উপজেলা সহসভাপতি বাচ্চু রহমান খান, সম্পাদক ইকরামুল হাসান মিঠু, সহসম্পাদক ফরিদুজ্জামান, বন্দবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সামাদ মন্ডল, বন্দবিলা ইউপি চেয়ারম্যান সবদুল হোসেন খান, সাবেক চেয়ারম্যান শওকত হোসেন মন্ডল, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান, বিএনপি নেতা শামছুর রহমান, বন্দবিলা ইউনিয়ন বিএনপির সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ভুট্টো, বিএনপি নেতা মনিরুজ্জামান তপন প্রমুখ। জানাজা শেষে গাইদঘাট গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা মায়ের পাশে দাফন করা হয়।