বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলো ভারত

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক :  হঠাৎ করেই বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত। দেশের তিনটি প্রধান স্থলবন্দর দিয়ে সোমবার ভারত থেকে কোনো পেঁয়াজ আসেনি।

পূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে ইলিশ রপ্তানির প্রথম দিনেই ভারত থেকে পেঁয়াজ আসা কেন বন্ধ হলো সে বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো কারণ কেউ বলতে পারেননি।

ভারত থেকে মূলত সাতক্ষীরার ভোমরা, দিনাজপুরের হিলি ও যশোরের বেনাপোল দিয়ে বেশি পেঁয়াজ আমদানি হয়।

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের সিএন্ডএফ এজেন্ট শংকর দাস জানান, কয়েকদিন ধরে ভারতের বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টি ও বন্যা দেখা দিয়েছে। এ কারণে ভারতের সবচেয়ে বেশি পেঁয়াজ উৎপাদিত হওয়া অঞ্চলগুলো তলিয়ে গেছে। এছাড়া সেখানকার বাজারে পেঁয়াজের দামও বেড়েছে। নিজ দেশে পেঁয়াজের দাম ঠিক রাখতেই হয়তো তারা বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ রেখেছে।

বেনাপোল কাস্টম হাউসের সহকারী কমিশনার কল্যাণ মিত্র চাকমা জানান, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের কোনো নির্দেশনার খবর তিনি জানেন না।

একই কথা বলেন ভোমরা কাস্টম হাউসের সহকারী কমিশনার পারভেজ আমান।

অন্যদিকে সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মেসবাহ বাংলানিউজকে জানান, রোববার আমদানি অর্ডারের বিপরীতে ভারত থেকে ৪৪টি পেঁয়াজের ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করলেও সোমবার নতুন করে কোনো আমদানি অর্ডার নেয়নি ভারত।

তিনি আরও জানান, কাস্টমস অ্যাসিসট্যান্ট কমিশনার স্বাক্ষরিত এক আদেশে ভারতের পক্ষ থেকে সোনামসজিদ বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের কোনো নির্দেশনা ভারতীয় সংশ্লিষ্ট সংস্থার দপ্তরের ওয়েবসাইটে পাওয়া যায়নি। সাধারণত আনুষ্ঠানিকভাবে রপ্তানি বন্ধ করা হলে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা ওয়েবসাইটে দেওয়া হয়।

এর আগেও পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছিল ভারত। তখন দেশে পেঁয়াজের দাম ৩০০ টাকা কেজি পর্যন্ত উঠেছিল। মার্চ মাসে পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় ভারত।