ট্রাকের টায়ারের মধ্যে ফেনসিডিল পাচার, চালক আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে একটি ট্রাকের টায়ারের মধ্যে থেকে ৩শ’ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করেছে ডিবি পুলিশ। অভিনব কায়দায় টায়েরের ভেতর ওই ফেনসিডিল লুকিয়ে বেনাপোল থেকে গোপালগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো। এ ঘটনায় ট্রাকসহ চালককে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সালাউদ্দিন শিকদার এক প্রেসব্রিফিংয়ে এ তথা জানান।

পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে বলা হয়, যশোরের ডিবি পুলিশ গত সোমবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পায় ট্রাকে করে ফেনসিডিলের একটি চালান বেনাপোল থেকে আসবে। এ সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশের ওসি সোমেন দাশের নেতৃত্বে একটি টিম গত সোমবার রাত সোয়া ১২টার দিকে যশোর-বেনাপোল সড়কের গাজীর দরগাহ ফিলিং স্টেশনের সামনে ওঁৎ পেতে থাকে। এর কিছু সময় পর বেনাপোল থেকে আসা কাক্সিক্ষত ট্রাকটি (মৌলভীবাজার-ট-১১-০০১৭) দেখতে পেয়ে ডিবি পুলিশ থামার জন্য সিগন্যাল দেয়। কিন্তু চালক সিগন্যাল উপেক্ষা করে দ্রুত গতিতে ট্রাক যশোর শহরের দিকে আসতে থাকেন। ফলে ডিবি পুলিশ মাইক্রোবাস নিয়ে ট্রাকটি ধাওয়া করতে থাকে। এক পর্যায়ে যশোরের নতুন খয়েরতলা থেকে চালকসহ ট্রাকটি আটক করা হয়। আটক চালকের নাম আজিজুর রহমান আজু (৪০)। তিনি শার্শা উপজেলার সাদিপুরের মৃত নুর ইসলামের ছেলে। আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে চালক স্বীকার করেন যে, ট্রাকের অতিরিক্তি টায়ারের ভেতর ফেনসিডিল রয়েছে। এরপর ওই টায়েরের ভেতর থেকে অভিনব কায়দায় লুকিয়ে রাখা ২৯৩ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

ব্রিফিংয়ে আরও বলা হয়, ফেনসিডিলের আসল মালিক সাদিপুর বেলতলার মোড় এলাকার আব্দুল আলিমের ছেলে আব্দুস সালাম (৩৫)। তিনি ফেনসিডিলের চালানটি বেনাপোল থেকে গোপালগঞ্জে নিয়ে যাচ্ছিলেন। ট্রাকেও তিনি ছিলেন। কিন্তু কৌশলে পালিয়ে গেছেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে ডিবি পুলিশের ওসি সোমেন দাশ উপস্থিত ছিলেন।