তীরেরহাটে মামলা তুলে নিতে বিকাশ এজেন্টকে হুমকি, জিডি

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর সদর উপজেলার হৈবতপুর ইউনিয়নের তীরেরহাট গ্রামের ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ী ও বিকাশ এজেন্ট আক্তারুজ্জামান আক্তারকে মামলা তুলে নিতে হুমকি দিয়েছে আসামিপক্ষ। এ ঘটনায় সোমবার তিনি কোতয়ালি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। যার নম্বর ৭৬৩।

সাধারণ ডায়েরিতে আক্তারুজ্জামান উল্লেখ করেছেন, তীরেরহাট গ্রামের আবু বক্কার সরদারের ছেলে আলমগীর হোসেন, মকলেছ সরদারের ছেলে ইমন হোসেন, সিরাজুল ইসলামের ছেলে সেলিম রেজা ও আলী গাজীর ছেলে মুক্তার আলী এলাকায় সন্ত্রাসী প্রকৃতির মানুষ হিসেবে চিহ্নিত। তারা প্রভাব খাটিয়ে তীরেরহাট শহীদ ইদ্রিস মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জমি অবৈধভাবে দখল করে একাধিক দোকান তৈরি করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে। কিন্তু বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমোদন নিয়ে  দক্ষিণ পাশে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করেছেন আক্তারুজ্জামান। এতে আলমগীর পক্ষরা নাখোশ। গত ২৯ আগস্ট উল্লিখিতরা আক্তারুজ্জামানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় তিনি আলমগীর হোসেন, ইমন হোসেন, সেলিম রেজা ও মুক্তার আলীসহ ১৬ জনকে আসামি করে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। যার নম্বর ১৯/৬৯৫,

আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিয়ে এলাকায় ফিরে গত ১০ সেপ্টেম্বর মামলার বাদী বিকাশ এজেন্ট আক্তারুজ্জামানের ফ্লাক্সিলোডের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে তাকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বলে। অন্যথায় তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়।

আক্তারুজ্জামান জানান, দৌলতদিহি গ্রামের সিদ্দিক হত্যা মামলার আসামি আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে এলাকায় একটি অপরাধচক্র গড়ে তোলা হয়েছে। তারা এলাকায় চাঁদাবাজি, সরকারি জমি দখল, মাদক ব্যবসাসহ নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত। এলাকায় একক আধিপত্য বিস্তার করতে অপরাধ চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন সময় প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দেয়।  গত ২ সেপ্টেম্বর ওই অপরাধীচক্রের বিরুদ্ধে তিনি প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন। বর্তমানে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।