‘নো মাস্ক নো এন্ট্রি’ নোটিশ মানা হচ্ছে না: যশোরে করোনায় আক্রান্ত ৩৭শ’ ছাড়ালো

 

বিল্লাল হোসেন : যশোরে কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩৭শ’ ছাড়ালো। বৃহস্পতিবার ১ জন চিকিৎসকসহ নতুন করে ২৮ জন শনাক্তের মধ্য দিয়ে জেলায় আক্রান্তের দাঁড়ালো ৩৭১১ জন। এছাড়া ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চললেও মানুষের মাঝে স্বাস্থ্য সচেতনতা দিন দিন কমছে। করোনা প্রতিরোধ কমিটির নির্দেশনায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ‘নো মাস্ক নো এন্ট্রি’ নোটিশ লাগানো হলেও বিষয়টি মানছেন না অনেকেই। প্রতিষ্ঠান মালিকেরা বিষয়টি মানতে বাধ্য করছেন না।

সিভিল সার্জন অফিসের দাািয়ত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, বৃহস্পতিবার  যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার থেকে ১৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পাঠানো হয়। তাতে ২৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এরমধ্যে যশোর সদর উপজেলায় ২১ জন, চৌগাছা উপজেলায় ২ জন, ঝিকরগাছা উপজেলায় ১ জন ও অভয়নগর উপজেলায় ৪ জন রয়েছেন। ডা. রেহেনেওয়াজ আরও জানান, এদিন ২০ জনের করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

যবিপ্রবির অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. তানভীর ইসলাম জানিয়েছেন, বুধবার জেনোম সেন্টারে যশোরের ২৮ জন ছাড়াও মাগুরা জেলার ১৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১ জন এবং নড়াইল জেলার ৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের শরীরে কোভিডের জীবাণু পাওয়া গেছে। সবমিলিয়ে ২০১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩১ জনের করোনা পজিটিভ ও ১৭০ জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে। যশোর জেলায় আক্রান্তরা হলেন আক্রান্তরা হলেন, ডা. মুসাকালিমুল্লাহ (৪৯), বদিউজ্জামান (৩২), রবি (৫৩), মারুফা (৪৫), রতন বিশ্বাস (৬৫), হুমায়ুন (৪৮), ইমান আলী (৬৬), মিমি (২৯), ফারহানা (২১), হাবিবুর রহমান (৩৮), দেবদুলাল (৪৮),  মিতা (৩০), আলমগীর হোসেন (৫২),সাধনা বিশ্বাস(৩০) সোহরাব হোসেন (৫৫), উজ্জল (২৯), জরিনা বেগম (৫৫), ইসমাইল হোসেন (৬০), আলী আহমেদল (৪৬) সবুর খান (৪০), ওসমান গণি (৬৬) , রাশিদা বেগম (৫৫), কুমারেশ দত্ত (৫৫) ,মুনতাজা হাকিম (৫৫), জয়ন্ত কুমার(৩০), নাসরিন আক্তার (৩০) ও আনারকলি (৫০)। জানা, গেছে, যশোর করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে গত ৬ সেপ্টেম্বর করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় মাস্ক ছাড়া মানুষ কোন প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করতে পারবেন না। পরের দিন নো ‘মাস্ক নো এন্ট্রি’ নোটিশও পাঠানো হয় প্রতিষ্ঠান মালিকদের কাছে। নোটিশ দেয়ালে লাগানো থাকলেও বিষয়টি অনেকেই মানছেন না। মুখে মাস্ক ছাড়াই মানুষ সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল, সপিং মল, মার্কেটে মানুষ অবাধে যাতায়াত করছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ধার ধারছেন না। যশোর শহরের বিভিন্ন হাসপাতাল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক , ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ঘুরে এমন দৃশ্য চোখে পড়েছে। যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, জেলায় মোট ৩৭১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২৪৮৬ জন। আর ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে ঢাকা ও খুলনার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ৮ জন।  সকলকে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানিয়েছেন সিভিল সার্জন।