সদরকে ডিজিটাল উপজেলায় পরিণত করতে চান নীরা

মিরাজুল কবীর টিটো:
যশোর সদর উপজেলাকে ডিজিটাল উপজেলায় পরিণত করতে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে চান যশোর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি উপজেলার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নুর জাহান ইসলাম নীরা।
তিনি বলেন দলীয় মনোনয়ন পেয়ে যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারি তাহলে সদর উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের সব গ্রামে ইন্টারনেট সুবিধা পৌঁছে দেয়া হবে। যাতে করে শিক্ষার্থীরা অনলাইনে ঘরে বসে লেখাপড়া করতে পারে। পাশাপাশি প্রতিটি গ্রামের রাস্তা,কালভার্ট ,সকল শিক্ষা ও ধার্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করা হবে। উপজেলার সব দফতরের অনিয়ম,দুর্নীতি দূর করে জনগনের মাঝে প্রদান করা হবে সঠিক সেবা । কোন মানুষকে উপজেলা পরিষদের কাজে এসে দুর্ভোগে পড়তে হবে না। সেই সাথে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মানুষের মুখে হাসি ফোটানো হবে। নুর জাহান ইসলাম নীরা আরো বলেছেন রাজনৈতিকে পরিবারে আমার জন্ম । আমার বাবা মরহুম রফিউদ্দীন আহমেদ পাকিস্তান আমলে বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। এ কারনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে ও পারিবারিক সহযোগিতায় আমি ১৯৮১ সাল থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতি করার মধ্যদিয়ে রাজনীতিতে প্রবেশ করি। ওই সময় সরকারি মহিলা কলেজে লেখাপড়া করা কালীন কলেজ ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও পরবর্তীতে জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করি। ১৯৯৩ সালে যশোর পৌরসভার সাবেক ২ নম্বর ওয়ার্ড বর্তমান ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচিত হই। ১৯৯৭ সালে তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভোটে যশোর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হই। গত বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালের উপজেলা নির্বাচনে ভাইসচেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার এক বছরের মাথায় এ বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যানে দায়িত্ব পায়। উপজেলা পরিষদের ভাইসচেয়ারম্যান ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকাকালীন উপজেলার অনেক মানুষকে বয়স্ক,বিধবা,প্রতিবন্ধী ভাতার সুবিধা স্বচ্ছভাবে প্রদান করা হয়। দরিদ্র ছেলেমেয়েদের আর্থিক সুবিধা প্রদানসহ বই দেয়া হয়েছে। করোনা কালীন পরিস্থিতিতে সব সময় উপজেলারবাসির পাশে থেকেছি। এ পরিস্থিতি গরিব মানুষের খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। এখন মানুষের বিভিন্ন সেবা প্রদান করছি। আগামীতে যদি উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পার। তাহলে বেশি বেশি সেবা প্রদান করতে পারবে। আর যদি চেয়ারম্যান না হই,তারপরও জনগনের পাশে থাকবো।