পাওনাদারদের টাকা ফেরত দেয়ার  প্রতিশ্রুতি উত্তরা ফুডসের

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভারতীয় ভিএইচ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান উত্তরা ফুডস অ্যান্ড ফিডস বাংলাদেশ লিমিটেড কর্তৃপক্ষ তাদের পাওনাদারদের টাকা ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। চলমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে তাদেরকে ধৈর্য ধারণের আহ্বান করেছেন কোম্পানির কর্মকর্তারা। রোববার দুপুরে  প্রেসক্লাব যশোর মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কোম্পানির পক্ষ থেকে এ আহ্বান জানানো হয়।

কোম্পানির এজিএম অবিনাষ মারাঠী লিখিত বক্তব্যে জানান, গত ২৬ আগস্ট কোম্পানির কাছে ১৬ কোটি পাওনার বিষয়ে ২৪ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন ভারতীয় প্রতিষ্ঠান (ভিএইচ) গ্রুপ তাদের পাওনা প্রায় ১৬ কোটি টাকা পরিশোধ না করে ব্যবসা গুটিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়া করছে। সরবরাহকারীদের এই বক্তব্য সত্য নয় দাবি উল্লেখ করে তারা বলেন, পোল্ট্রি শিল্পে ধস ও বাজারে কোম্পানির প্রায় ত্রিশ কোটি টাকা আটকে যাওয়ায় পাওনাদারদের টাকা প্রদানে বিলম্বিত হচ্ছে। যে কারণে পাওনাদারদের টাকা প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সময়মত দেয়া সম্ভব হয়নি। কোম্পানি আইন অনুযায়ী, বিদেশি কোনও কোম্পানি পাওনাদারদের টাকা বাকি রেখে তাদের ব্যবসা গুটিয়া ফেলতে পারে না। অন্য কোনও কোম্পানির কাছে হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার আগেই পাওনাদারদের সমুদয় টাকা পরিশোধ করতে বাধ্য। কোম্পানি সরবরাহকারীদের পাওনা টাকা পরিশোধ করার লক্ষ্যে যথাযথ প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, ভিএইচ গ্রুপ বিশে^র ৪৪ টি দেশে সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। পাওনাদারদের টাকা আত্মসাৎ করার কোনও পরিকল্পনা কোম্পানির কখনই ছিল না। বা এরূপ কোনও কাজও তারা করেননি। খুব শিগগিরই তাদের পাওনা পরিশোধ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন কর্মকর্তারা। সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন কোম্পানির এজিএম অবিনাষ মারাঠী, সিনিয়র ম্যানেজার (অ্যাকাউন্টস) ইন্দ্রজিৎ কুমার দে ও সহকারী ম্যানেজার (ক্রয়) মোল্যা জহুরুল হক।

উল্লেখ্য, ২৬ আগস্ট সংবাদ সম্মেলন করে কোম্পানির কাছে কাঁচামাল সরবরাহকারীরা অভিযোগ করেন, ভিএইচ গ্রুপের প্রতারণায় তারা পথে বসার উপক্রম। গত তিন বছর ধরে পাওনা টাকা পরিশোধে কোম্পানি তাদের সঙ্গে টালবাহানা করছে। ওই কোম্পানি তাদের যশোরে থাকা দুটি কারখানার একটি ভাড়া এবং অপরটির কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে।