প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির আশীর্বাদ : শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল :  যশোর-১ (শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির জন্য আশীর্বাদ। বঙ্গবন্ধুর চিন্তা-চেতনা আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাবনা এক হওয়ায় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের অসমাপ্ত কাজগুলো বাস্তবায়ন করে দেশ উন্নয়নের পথে ধাবিত হচ্ছে।

সোমবার বিকেল ৩ টায় শার্শা উপজেলা প্রাঙ্গণে বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার ৭৩ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে কেক কেটে ও বেলুন উড়িয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন আরো বলেন, ওরা ভেবেছিলো বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেই বাংলাদেশের উন্নয়ন থেমে যাবে। কিন্তু না। জাতির জনকের কন্যা দীর্ঘকাল অতিক্রম করে ষড়যন্ত্রকারীদের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে দুর্বারগতিতে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন। যার বাস্তব উদাহরণ আজ সমগ্র গ্রামাঞ্চল। আগে গ্রামের বয়স্করা ফোন করে বলতেন, এমপি সাহেব, আমাদের জীবদ্দশায় কি বিদ্যুতের আলো দেখে যেতে পারবো? এখন আর কেউ আমাকে বিদ্যুতের জন্য ফোন করেন না। প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় নেতৃত্বের কারণে সমগ্র বাংলাদেশের সাথে আমার নির্বাচনী এলাকা শার্শার প্রতিটি গ্রামাঞ্চলের শতভাগ মানুষ বিদ্যুতের আলো ভোগ করছেন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ছিলো, প্রতিটি গ্রামে শহরের সেবা পৌঁছে দেয়া হবে। সেসকল কথা রেখেছে আওয়ামী লীগ সরকার। এখন প্রত্যেকটি গ্রামাঞ্চলের রাস্তা পাকাকরণ আর শিক্ষালয়গুলো হয়েছে আধুনিকায়ন। গ্রামের মসজিদগুলো ঝলমলে টাইলসে সৌন্দর্যবর্ধিত হয়েছে। মুসল্লিদের শান্তির জন্য প্রায় মসজিদে এয়ারকন্ডিশনযুক্ত হয়েছে। মন্দিরগুলো করা হচ্ছে আধুনিকায়ন। সারের হাহাকারে কৃষকদের এখন আর জামাত-বিএনপির শাসনামলের মতো গুলি খেয়ে মরতে হচ্ছে না, বরং সার দৌড়াচ্ছে কৃষকের দোরগোড়ায়।

শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শেখ আফিল উদ্দিন এমপি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের কেবল দারিদ্র মুক্ত করেননি, উন্নত শিক্ষা ও চিকিৎসার মাধ্যমে দেশের মানুষকে উন্নত জীবনে চলার পথ তৈরি করেছেন। কেবল সময়ের ব্যাপার মাত্র। আমরা চলেছি উন্নয়নের মহাসড়কে, যার নজির আমাদের জীবদ্দশায় দেখে যেতে পারব বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ নুরুজ্জামান, সহসভাপতি আলহাজ সালেহ আহমেদ মিন্টু, যুগ্মসম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, কোষাধ্যক্ষ ওয়াহিদুজ্জামান, ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ, দৈনিক স্পন্দন পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ও আফিল গ্রুপের পরিচালক মাহাবুব আলম লাবলু, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ-উদ-দৌলা অলোক, বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ এনামুল হক মুকুল, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ নাসির উদ্দিন, যুগ্মসম্পাদক মহাতাব উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক আকবার আলী, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান অহিদ, সাধারণ সম্পাদক ও শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, সাধারণ সম্পাদক ইকবল হোসেন রাসেল, বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ বজলুর রহমান, পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান হাদিউজ্জামান, গোগা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আব্দুর রশিদ, বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ কবির বকুল, কায়বা ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিংকু, উলাশী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আয়নাল হক, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আযাদ, ডিহি ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন আলী, লক্ষণপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারা বেগম, সাবেক চেয়ারম্যান কামাল হোসেন, বাহাদুরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, বেনাপোল পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টু, সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, ছাত্রলীগের সভাপতি আল মামুন জোয়াদ্দার, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমান, বেনাপোল হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রাজু আহমেদ, কলি মুল্লাহ, “যশোর আন্তজেলা ট্রাক-ট্রাক্টর, কভার্ডভ্যান ও ট্যাংকলরী (দাহ্য পদার্থ বহনকারী ব্যতীত) শ্রমিক ইউনিয়ন”র সভাপতি মনিরুজ্জামান ঘেনা প্রমুখ।